সিবিএন ডেস্ক: রাজশাহীতে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি হয়েছে। এ ঘটনায় ১৩ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আজ বুধবার বিকেলে নগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে।

আটক নেতাদের মধ্যে রয়েছেন সিপিবির রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি এনামুল হক, সাধারণ সম্পাদক রাগিব আহসান মুন্না, বাসদ রাজশাহী জেলা শাখার আহ্বায়ক আলফাজ হোসেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশনের আহ্বায়ক শাহরিয়ার ও রাজশাহী মহানগর ছাত্র ফেডারেশনের সম্পাদক জিন্নাত আরা সুমু।

পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেলে নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টের প্রেসক্লাব প্রান্তে বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির পথসভাকে নিরাপত্তা দিচ্ছিল পুলিশ। এ সময় জিরোপয়েন্টে বাম গণতান্ত্রিক জোট স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফর বাতিল, সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে ভাঙচুর ও হামলা এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন করতে যায়। তবে মানববন্ধনের অনুমতি না থাকায় তাদের বাধা দেয় পুলিশ।

বাধা পেয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতাকর্মীরা উত্তেজিত হয়ে স্লোগান দিতে শুরু করে। এ সময় পুলিশ তাদের ঠেলে সরিয়ে দিতে চাইলে তর্কে জড়ায় তারা। একপর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হলে পুলিশ পাঁচ নেতাসহ ১৩ জনকে আটক করে বোয়ালিয়া থানায় নিয়ে যায়। বাকিদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সবাইকে সরিয়ে দেয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক জানান, বাম গণতান্ত্রিক জোট মানববন্ধনের জন্য পুলিশকে আগে থেকে কিছু জানায়নি। পাশেই ওয়ার্কার্স পার্টির পূর্ব নির্ধারিত মানববন্ধন চলছিল। এ কারণে বাম গণতান্ত্রিক জোটকে মানববন্ধন না করতে অনুরোধ করে পুলিশ। কিন্তু তারা অনুরোধ উপেক্ষা করে রাষ্ট্রবিরোধী স্লোগান দিতে শুরু করে। এ সময় তারা পুলিশের সঙ্গে তর্ক শুরু করে এবং ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে বাম গণতান্ত্রিক জোটের কয়েকজনকে আটক করে বোয়ালিয়া থানায় নেওয়া হয়েছে। তবে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •