কক্সবাজার জেলা বাবুর্চি শ্রমজীবী সমবায় সমিতির মাহফিলে ড.মুফতি আবুল কালাম আযাদ বাশার

যারা হক কথা বলে না তারা বোবা শয়তান

প্রকাশ: ২৪ মার্চ, ২০২১ ১২:০২ , আপডেট: ২৪ মার্চ, ২০২১ ১২:০৮

পড়া যাবে: [rt_reading_time] মিনিটে


ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
মাহফিলে দাওয়াত না পাওয়া, চাকুরী চলে যাওয়া, কিংবা জেল-জুলুমের ভয়ে যারা হক কথা বলে না, তারা বোবা শয়তান। সর্বাবস্থায় সত্য কথা বলা ঈমানদারের পরিচয়। আল্লাহর আইনের বাইরে থাকলে ঈমান থাকবে না।

নাজাতের একমাত্র গ্যারান্টি ঈমান। শুধু নামাজে পার পাওয়া যাবে না। কাদিয়ানিরা নামাজ পড়ে। কিন্তু সেই নামাজ তাদের মুক্তি দিবে না। কারণ, তারা শেষ নবীকে বিশ্বাস করে না। কাদিয়ানিরা মুসলমান নয়।

কক্সবাজার জেলা বাবুর্চি শ্রমজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের তাফসীরুল কুরআন মাহফিলে আন্তর্জাতিক মুফাসসির ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ড.মুফতি আবুল কালাম আযাদ বাশার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঈমানদার দাবি করলে ক্ষণিকের দুনিয়ার মায়া ছাড়তে হবে। জীবন হতে হবে জান্নাতমুখি। কুরআন হাদিস মেনেই জীবন চালাতে হবে। দীর্ঘ হায়াতের পর মৃত্যুকালে সঙ্গী হিসেবে ভাল আমল নিতে না পারলে মুসলমান হিসেবে জীবনটাই ব্যর্থ।

ড.মুফতি আবুল কালাম আযাদ বাশার বলেন, পবিত্র কুরআন আল্লাহর একান্ত বাণী। কুরআন মানলে জান্নাত। না মানলে জাহান্নাম। হেদায়েতের একমাত্র মাধ্যমে এই কুরআন। যারা কুরআনের নির্দেশ মেনে চলবে তারা দুনিয়া ও আখেরাতে সম্মানিত হবে।

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) রাতে কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধান আলোচক ছিলেন ড.মুফতি আবুল কালাম আযাদ বাশার।

মাহফিলে তিনি বলেন, বেশি চাওয়া-পাওয়া থেকে বিপদ আসে। লালসা অবৈধ পথে ধাবিত করে। কমে তুষ্ট থাকাই মুমিনের পরিচয়। লালসা সংবরণ করে চলতে হবে।

বাবুর্চি সমিতির ঐতিহাসিক এই মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব ও চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড কামিল (মাস্টার্স) মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা মাহমুদুল হক।

বিশেষ বক্তা হিসেবে আলোচনা করেন- চকরিয়া শাহারবিল আনোয়ারুল উলুম কামিল (মাস্টার্স) মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা শফিউল হক জিহাদী ও কুমিল্লার কাজিবাড়ি কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব হাফেজ মাওলানা জসিম উদ্দিন চাঁদপুরী।

কক্সবাজার জেলা শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিনের সঞ্চালনায় মাহফিলে কক্সবাজার জেলা শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আমিনুল হক, কক্সবাজার জেলা হোটেল রেস্তোরাঁ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আমিনুল ইসলাম হাসান, কক্সবাজার ঈদগাহ মাঠ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা কাইয়ুম, বৃহত্তর বার্মিজ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মুছা কলিম উল্লাহ, কক্সবাজার জেলা দোকান কর্মচারী ও হকার্স সমিতির সভাপতি এমইউ বাহাদুর,
কক্সবাজার জেলা বাবুর্চি শ্রমজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মোহাম্মদ নুরুন্নবী বাবুর্চি, মাওলানা রহিমুল্লাহ, শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ আনোয়ার, গিয়াস উদ্দিন রুকন, মোহাম্মদ আলম, বাবুর্চি বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ হারুন বাবুর্চিসহ বিভিন্ন স্তরের মান্যগন্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •