কফিল উদ্দিন রামু :

আশ্রয়নের অধিকার,মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার। যার জমি নাই ঘর নাই প্রকল্পের আওতায় রামু উপজেলার বিভিন্ন এলাকার হতদরিদ্ররা পাচ্ছেন স্বপ্নের একটি বাড়ি,তাদের জন্য তৈরি করা হচ্ছে সুনিপুণ একটি ঘর।

২২ মার্চ সোমবার রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের লট উখিয়ার ঘোনা গ্রামে যার জমি নাই ঘর নাই প্রকল্পের গৃহ নির্মান কাজ পরিদর্শনে আসেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ। এসময় তিনি রামুর হাজারিকুলের এক বৃদ্ধ পঙ্গু নারী রেনু বড়ুয়াকে একটি ঘর তুলে দেন।

জানা যায়, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রশাসন ক্যাডারদের সংগঠন বাংলাদেশ এডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস এসোসিয়েশন, কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ২ শতক জমির উপর একটি পাকা ঘর রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের হাজারীকুল গ্রামের প্রতিবন্ধী নারী বেনু বড়ুয়াকে মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) বিকেলে রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রনয় চাকমা নিজ কার্যালয়ে তার কাছে ঘরের প্রতীকী দলিল হস্তান্তর করেন।

বাড়ি পাওয়া উপকারভোগী প্রতিবন্ধী নারী বেনু বড়ুয়া জানান, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুজিব শতবর্ষের উপহার পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি এবং আমার প্রতিবন্ধী সন্তান নিয়ে সুখে দিন কাটাতে পারব অনেকদিন পর।

এসময় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ জানান,মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার। যার জমি নাই ঘর নাই প্রকল্পের আওতায় কক্সবাজার জেলার সকল উপজেলায় একযোগে বাড়ি নির্মানের কাজ চলতেছে,এবং আমাদের প্রথম ধাপের কার্য শেষ এবং দ্বিতীয় ধাপের জন্য আমার চিঠি পেয়েছি খুব শীঘ্রই সার্ভে করে তালিকা মন্ত্রাণালয়ে পাঠিয়ে দিব।

এসময় রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার বাবু প্রণয় চাকমা,সহকারি কমিশনার (ভুমি) সরওয়ার উদ্দিন, প্রকল্প কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাদেকুর রহমান,কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, কাউয়ারখোপ ইউপি সচিব দোলন পাল, সাংবাদিক বৃন্দ, স্থানীয়জনগন সহ কক্সবাজার জেলা ও রামু উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •