অনলাইন ডেস্ক : রবিবার সকালে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের তিলপাপাড়ায় জুবায়েদ ইসলাম সিয়াম নামের এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সিয়াম খিলগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ত। পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

পরিবারের সদস্যরা জানান, সিয়াম মোবাইল ফোনে ওমানপ্রবাসী এক নারীর সঙ্গে নিয়মিত কথা বলত। এর সূত্র ধরেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই নারীর সঙ্গে ঝগড়ার জের ধরে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে তারা ধারণা করছেন।

পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। খিলগাঁও থানার এসআই বদরুল আল-আমিন জানান, বাসার একটি কক্ষ থেকে সিয়ামের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

সিয়ামের বাবা জাহিদ খান জানান, বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে এক মেয়ের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল সিয়ামের। ওই মেয়ের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলত সে। মেয়েটির আগেও একবার বিয়ে হয়েছিল। ওই মেয়ে এখন ওমানে থাকে। তাদের মধ্যে মাঝেমধ্যেই ঝগড়া হতো। ঝগড়ার জের ধরে সিয়াম আত্মহত্যা করেছে।

জাহিদ খান বলেন, সকালে সিয়ামের রুমের লাইট জ্বালানো দেখে দরজায় নক করি। ভেতর থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে ঢুকে দেখি সে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আছে। পরে পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে। -কালেরকন্ঠ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •