রামু প্রতিনিধি :
রামুতে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে গুরতর আহত এক যুবক কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছে। আহত শাকিল হোসেন (২২) রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি হাসপাতাল পাড়া এলাকার মৃত ফরিদ হোসেনের ছেলে। গত মঙ্গলবার ( ৯ মার্চ) রাত সাড়ে সাতটায় রামু হাসপাতাল গেইট এলাকায় শাকিল হোসেন হামলার শিকার হন। এ হামলায় আরো আহত হন শাকিল হোসেনের মা রোকেয়া বেগম, বড় ভাই জামাল হোসেন ভূট্টা ও ভাবি মর্জিনা আকতার। এ ঘটনায় রামু থানায় মামলা করেছেন আহত জামাল হোসেন ভূট্টো।
জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ওই দিন রাত সাড়ে সাতটায় শাকিল হোসেনকে পরিকল্পিতভাবে ছুরিকাঘাত করেন-একই এলাকার আমির হোসেন হেলালীর ছেলে মো. হারুন। পেঠে ছুরিকাঘাতে ব্যাপক রক্তক্ষণের ফলে শাকিলকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শাকিলকে ছুরিকাঘাত করার আধঘন্টা পর হামলাকারি মো. হারুন ও তার ভাই মো. শহীদুল্লাহ, মামুনুর রশিদ এবং মৃত আবু বক্কর বৈদ্যের ছেলে আকতারুজ্জামান বাবু ২ দফায় শাকিল হোসেনের বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারিরা শাকিলের মা রোকেয়া বেগম, বড় ভাই জামাল হোসেন ভূট্টো ও ভাবি মর্জিনা আকতারকে মারধর করে।
এ ঘটনায় আহত জামাল হোসেন ভূট্টো বাদি হয়ে রবিবার (১৪ মার্চ) রামু থানায় মামলা করেছেন। মামলায় অভিযুক্তরা হলেন- রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি হাসপাতাল পাড়া এলাকার আমির হোসেন হেলালীর ছেলে মো. হারুন, মো. শহীদুল্লাহ ও মামুনুর রশিদ এবং মৃত আবু বক্কর বৈদ্যের ছেলে আকতারুজ্জামান বাবু।
রামু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কেএম আজমিরুজ্জামান জানিয়েছেন- পুলিশ হামলার বিষয়টি তদন্ত করছে। এনিয়ে মামলা রুজু হয়েছে। অভিযুক্তদের আটকের চেষ্টা চলছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •