সিবিএন ডেস্ক:
করোনার তাণ্ডবে বিপর্যস্ত বিশ্ব। এরই মধ্যে আতঙ্ক বাড়াচ্ছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের নতুন নতুন ধরন। এমন পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আবারও লকডাউনে যাচ্ছে ইতালি। ১৫ মার্চ সোমবার থেকে লকডাউন চলবে ৬ এপ্রিল মঙ্গলবার পর্যন্ত। মূলত এ বছরও স্টার সানডে ঘরে বসেই কাটাতে হবে ইতালির অধিকাংশ অঞ্চলের জনসাধারণকে।

সম্প্রতি ইতালিতে করোনার নতুন রূপ সংক্রমণ ঘটিয়ে যাচ্ছে। দেশটির উত্তরের জনবহুল অঞ্চল লোম্বারদিয়া ও দক্ষিণের ক্যালাব্রিয়া, লাছিওসহ মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রেডজোন ঘোষিত ১০টি বিভাগ হচ্ছে বাসিলিকাতা, কাম্পানিয়া, এমিলিয়া রোমানিয়া, ফ্রিউলি ভেনেৎসিয়া জুলিয়া, পিয়েমন্তে, ভেনেতো, তোস্কানা এবং মার্কে।

উত্তরাঞ্চলে আল্পস পর্বতমালায় স্বায়ত্তশাসিত বিভাগ ত্রেন্তিনো আলতো আদিজের দুই প্রধান নগরী ত্রেন্তো এবং বোলছানোকেও রেডজোন লকডাউনে নিয়ে আসা হয়েছে। কঠোরতা সামান্য শিথিল রেখে ৮টি বিভাগকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে অরেঞ্জ জোনে, যাতে আছে আবরুৎসো, কালাব্রিয়া, লিগুরিয়া, মোলিসে, পুলিয়া, সিচিলিয়া, উমব্রিয়া এবং ভাল্লেদাঅস্তা। তুলনামূলক নিরাপদ ইয়েলো জোন বাতিল করে ভূমধ্যসাগরের একেবারে মাঝখানে অবস্থিত সার্দেনিয়া বিভাগকে ইতালির একমাত্র হোয়াইট জোনেই রেখে দেয়া হয়েছে।

রেডজোনের অধিবাসীরা উপযুক্ত প্রমাণাদি সাথে থাকা সাপেক্ষে শুধুমাত্র নিজ কর্মস্থলে অথবা চিকিৎসক বা হাসপাতালে জরুরি প্রয়োজন এবং জরুরি কেনাকাটার জন্য ঘর থেকে বের হতে পারবেন, তবে সেল্ফ ডিক্লেয়ারেশন ফরম পূরণ করে সাথে রাখতে হবে।

রেডজোনে সকল প্রকার বার, রেস্টুরেন্ট, সুইমিংপুল, জিমনেসিয়াম, স্টেডিয়াম, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং জরুরি কেনাকাটার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যথারীতি বন্ধ থাকবে।

অরেঞ্জ জোনের অধিবাসীরা শুধুমাত্র নিজ পৌর এলাকার ভেতরে ভোর ৫টা থেকে রাত ১০টার মধ্যে দিনে একবার বের হতে পারবেন। জরুরি প্রয়োজনে নিজ এলাকার বাইরে যেতে তাদেরকেও পূরণ করে সঙ্গে রাখতে হবে সেল্ফ ডিক্লেয়ারেশন ফরম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •