নিজস্ব প্রতিবেদক:

আগামী ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে পুনরায় নৌকার কান্ডারী মনোনীত হয়েছেন বর্তমান মেয়র ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী। শনিবার ১৩ মার্চ দুপুরে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের দপ্তর সেল থেকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র আলমগীর চৌধুরীর নাম ঘোষনা দেয়ার পরপর চকরিয়া পৌরবাসির মাঝে শুরু হয় অন্যরকম আনন্দ উৎসবের। আর এই আনন্দ উৎসবে মিছিলে মিছিলে সামিল হন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী, থেকে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের পৌরবাসি।

এদিন বিকাল তিনটার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড থেকে খন্ড খন্ড মিছিলে আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়ো হন পৌরসভার প্রবেশপথে স্থাপিত চিংড়ি চত্বরে। প্রতিটি মিছিল থেকে চকরিয়া পৌরসভার বর্তমান সফল মেয়র উন্নয়নের কা-ারী আলমগীর চৌধুরীকে আবারও দলীয় মনোনয়ন তথা নৌকা প্রতীক উপহার দেয়ায় আওয়ামীলীগ সবাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে মিছিলে মিছিলে চকরিয়া পৌরশহরকে উৎসবের নগরীতে পরিণত করে। এসময় দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও পৌরসভার প্রতিটি জনপদের জনগন একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে দেন।

বিকাল চারটার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড থেকে মিছিলে মিছিলে চকরিয়া চিংড়ি চত্বরে সমবেত হওয়া আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের বিভিন্নস্তরের নেতাকর্মী এবং চকরিয়া পৌরসভার শ্রেণী-পেশার সমবেত মানুষ একসঙ্গে চকরিয়া পৌরশহরের প্রধান সড়কে আনন্দ মিছিলে অংশনেন। এসময় কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চিরিঙ্গা পুরাতন এসআলম কাউন্টার হয়ে শুরু হওয়া আনন্দ মিছিলটি থানা রাস্তার মাথা ঘুরে আবারও চকরিয়া চিংড়ি চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পৌরসভার বর্তমান মেয়র আলমগীর চৌধুরী শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের দপ্তর সেল থেকে পুনরায় মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি প্রকাশ হওয়ার পর এদিন বিকাল দুইটার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড থেকে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা আনন্দ মিছিল শুরু করেন। এরপর বিকাল চারটার আগে আনন্দ মিছিলে মিছিলে উৎসবের নগরীতে পরিণত হয় চকরিয়া পৌরশহরের বাণিজ্যিক এলাকা চিরিঙ্গা সোসাইটি। আনন্দ মিছিলে নেতৃত্ব দেন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সম্পাদক ছাড়াও সহযোগি সংগঠনের সভাপতি সম্পাদক এবং ইউনিট কমিটির নেতৃবৃন্দ।

চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে পুনরায় দলীয় মনোনয়ন দেয়ায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মেয়র আলমগীর চৌধুরী। তিনি ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রিয় চকরিয়া পৌরবাসি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখেছিলেন। প্রতিদান হিসেবে নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোট দিয়ে পৌরবাসি আমাকে নির্বাচিত করেন। আমি নির্বাচিত হবার পর থেকে ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার ভ্যানর্গাড হিসেবে আওয়ামীলীগের সকল কর্মসুচিতে ছিলাম এবং একজন ক্ষুদ্র সেবক হিসেবে পৌরবাসির জন্য কাজ করেছি।

তিনি বলেন, আমি বিগত পাঁচবছরে কোনধরণের অপকর্মে জড়িত ছিলাম না, দখলবাজি, চাঁদাবাজির মতো কোন কালিমা আমার গায়ে লাগতে দিইনি। অহেতুক কোন কারণে একজন মানুষকেও কষ্ট দিইনি। আওয়ামীলীগের সকলস্তরের নেতাকর্মীকে সম্মাণ দিয়েছি। নেতাকর্মীদের বিপদে আপদে খবর নিয়েছি, সাধ্যমতো সহযোগিতা দিয়েছি। একসঙ্গে অন্যদলের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত সর্বসাধারণকেও আমি ব্যক্তিগতভাবে সম্মাণ দিয়েছি।

মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, পাঁচবছর দায়িত্বপালন কালীন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মসুচি চকরিয়া পৌরবাসির মাঝে পৌঁছে দিয়েছি। উল্লেখিত সময়ে কমপক্ষে আড়াইশ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ পৌরবাসিকে উপহার দিয়েছি। এই উন্নয়নকাজের বদৌলতে গত ৫বছর পৌরসভার সাধারণ জনগণের ভালোবাসা অর্জন করেছি। তাই সবকিছু বিবেচনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মূল্যায়ন করেছে।’

তিনি বলেন, পাঁচবছরের ভালো কাজের বিপরীতে সরকারি বেসরকারি সবগুলো এজেন্সির প্রতিবেদন এবং কক্সবাজার জেলা, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের দেয়া মতামতের আলোকে ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’ আমার প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছেন। বিশ^াসের প্রতিদান হিসেবে দেশরত্ম শেখ হাসিনা চকরিয়া পৌরবাসির কল্যাণে কাজ করতে আমাকে আবারও দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। এইজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আশা করি, চকরিয়া পৌরবাসি উন্নয়নের পক্ষে থাকবেন। এবারের নির্বাচনে সকলধরণের ভয়ভীতিকে জলাঞ্জলি দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কাকে বিপুল ভোটে আবারও জয়ী করবে আমাকে জনগনের খেদমত করার সুযোগ দেবেন। পরিশেষে আমি আলমগীর চৌধুরী সম্মাণিত চকরিয়া পৌরবাসির দোয়া ও সমর্থন কামনা করছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •