বার্তা পরিবেশক :

কক্সবাজারের তিন উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের জন্য রাজধানী মুখি সবচেয়ে বেশী চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের দৌঁড়ঝাপ চলছে বহুল আলোচিত মহেশখালীর মাতারবাড়ী ইউনিয়নে। এক ডজনেরও বেশী লোক দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়নটির নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পেতে এখন মরিয়া হয়ে পড়েছেন।

রাজনীতির মাঠে দীর্ঘকাল ধরে কক্সবাজার জেলার ‘দ্বিতীয় গোপালগঞ্জ’ হিসাবে পরিচিত মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী ইউনিয়ন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অগণিত সমর্থক-কর্মীদের স্থানটি হচ্ছে মাতারবাড়ী। আবার সাম্প্রতিক সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক ইচ্ছায় কক্সবাজারের মাতারবাড়ীতে হচ্ছে দেশের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য মেগা প্রকল্প সমূহ।

দেশের বহুল কাংখিত গভীর সমুদ্র বন্দরটিও স্থাপিত হচ্ছে এই মাতারবাড়ীতে। এখানেই হচ্ছে তাপ বিদ্যুৎ প্রকল্পও। সাগর পাড়ের যে মাতারবাড়ী ১৯৯১ সালের ভয়াল ২৯ এপ্রিলের শতাব্দীর প্রলয়ংকরি জলোচ্ছাস ও ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে ক্ষত বিক্ষত হয়েছিল সেই মাতারবাড়ী এখন গড়ে তোলা হচ্ছে সিংগাপুরের আদলে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার মাতারবাড়ীর সাথে সংযোগ করে দিচ্ছে অভাবনীয় রেল লাইন। যে মাতারবাড়ীর উপকূলীয় জমিতে চিংড়ি ও লবণ চাষ করা হত সেই অনুন্নত জমিতে এখন বিদ্যুতের ঝিলিক আলো ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। একদিনের অন্ধকার এবং অবহেলিত মাতারবাড়ী হয়ে উঠেছে এখন আলোকিত মাতারবাড়ী।

এসব কারনেই সারাদেশ ছড়িয়ে এখন বিশ্বের বুকে স্থান পেয়েছে মাতারবাড়ী। বিশ্বজোড়া পরিচিতি লাভ করে চলেছে মহেশখালীর মাতারবাড়ী। আর এ কারনেই আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়েছে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের চেয়ারটি। কক্সবাজারের সাধারণ মানুষেরও দৃষ্টি রয়েছে-মাতারবাড়ীর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কে হচ্ছেন।

খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে, মাতারবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে প্রচুর সংখ্যক লোকজনই তদবির করছেন। দলীয় নির্দ্দেশনা অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে গেল বারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করে বিজয়ী হওয়া ইউনিয়নটির বর্তমান চেয়ারম্যান এবারও মরিয়া হয়ে পড়েছেন নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে। তবে দলীয় সুত্রে জানা গেছে, এবার দলীয় নীতিনির্ধারকরা অত্যন্ত কঠোর অবস্থান নিয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থীদের যাতে কোনভাবেই প্রার্থী না করার বিষয়টি নিয়ে।

অভিযোগ উঠেছে, মাতারবাড়ীর চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীক পেতে দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামীও জোর তদবিরে নেমেছেন। অথচ সরকার প্রধান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা রয়েছেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার অবস্থান নিয়ে। এমনিতেই উল্লিখিত ব্যক্তিদ্বয়ের বিরুদ্ধে মাতারবাড়ীতে চলমান মেগা প্রকল্পের উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়েও রয়েছে ভুরি ভুরি দুর্নীতির অভিযোগ।

মাতারবাড়ীর সর্বপ্রথম তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য জমি অধিগ্রহণের সময় চিংড়ি ও লবণ জমি দেখিয়ে ২২ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় জড়িত আরো অনেকেই জড়িত থাকার মামলায় দুদক ইতিমধ্যে চার্জশীট প্রদান করেছে। সেই মামলায় কক্সবাজারের তদানীন্তন জেলা প্রশাসক মোঃ রুহুল আমিন সহ আসামী হিসাবে কারাগারে বন্দি জীবন কাটিয়েছেন আরো অনেকেই।

এলাকার লোকজন বলছেন, যেসব ব্যক্তি রাজধানী ঢাকায় মাতারবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীক পেতে তদবির করছেন তাদের মধ্যে অনেক সজ্জন এবং জনপ্রিয় লোকও রয়েছেন। মাতারবাড়ির একাধিক ব্যক্তির মতে ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এনামুল হক রুহুল হতে পারেন জনপ্রিয়দের মধ্যে অন্যতম একজন। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি এবং রাজনৈতিক দলবদলের অভিযোগও নেই। এলাকার লোকজনের মতে, যেহেতু মাতারবাড়ী একটি ভিআইপি ইউনিয়ন সেহেতু ইউনিয়নের চেয়ারম্যান যিনি হবেন তাকেও হতে হবে একজন ভাল ও আদর্শিক মানুষ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •