প্রথম আলো:
সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে করা রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় পাঁচ বছর আগে গ্রেপ্তার হন বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরী। আজ মঙ্গলবার আট বছর আগের ঢাকার একটি নাশকতার মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত আজ মঙ্গলবার তাঁকে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদ করার নির্দেশ দেন।

ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে সরকার উৎখাত ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ২০১৬ সালের ১৫ মে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

নাশকতার মামলায় অভিযোগ করা হয়, ২০১৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি জামায়াতসহ সমমনা ১২টি ইসলামী দল হরতাল ডাকে। সেদিন হরতালের সমর্থনে কোতোয়ালি থানার বাবুবাজার মসজিদের সামনে মিছিল বের করলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট–পাটকেল নিক্ষেপ করা হয় এবং ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

আসলাম চৌধুরীর আইনজীবী তাহেরুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত ৬৮টি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। সর্বশেষ আজ কোতোয়ালি থানায় করা আট বছর আগের মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ডে চেয়েছিল পুলিশ। উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত তাঁকে তিন দিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার নির্দেশ দেন।

আসলাম চৌধুরীর আইনজীবী আরও জানান, গত ফেব্রুয়ারি মাসেও শাহবাগ থানায় করা আট বছর আগের একটি মামলায় আসলাম চৌধুরীকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে তিন দিন রিমান্ডে নেওয়া হয়েছিল।

আসলাম চৌধুরী সর্বশেষ দুটি মামলা ছাড়া বাকি সব মামলায় জামিন পেয়েছেন বলে জানান তাঁর আইনজীবী তাহেরুল ইসলাম। তাঁর দাবি, আসলাম চৌধুরী যাতে কারাগার থেকে ছাড়া না পান, সে জন্য তাঁকে পুরোনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •