অনলাইন ডেস্ক : কর্তব্যরত তিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোহিঙ্গা নারী হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন। ওই রোহিঙ্গা নারীর নাম জেসমিন বেগম (২২)। শনিবার (৬ মার্চ) ভোররাতে হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটে।

জেসমিন ভাসানচরের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ক্লাস্টার নং ২৭, হাউজ-বি-থ্রি’র মো. সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) দীপক জ্যোতি খীসা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, একজন রোহিঙ্গা নারী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে পালিয়ে গেছে বলে শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখন আমি বিস্তারিত কিছু বলতে পারব না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খীসা জানান, গত (২ ফেব্রুয়ারি) রাত ৩টা ৩০ মিনিটের দিকে গলায় টিউমার অপারেশন করতে স্বামী এবং শিশু সুমাইয়া আক্তারকে (৬) সঙ্গে নিয়ে রোহিঙ্গা নারী জেসমিন নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি হয়।

তিনি আরও জানান, পরে শনিবার ভোর রাতে শিশু বাচ্চাকে প্রস্রাব করানোর কথা বলে বাথরুমে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে বাথরুমে গিয়ে কর্তব্যরত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে তার স্বামীকে রেখে শিশু বাচ্চাকে নিয়ে পালিয়ে যায় ওই রোহিঙ্গা নারী।
– সারাবাংলা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •