নিজস্ব প্রতিবেদক :
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ- ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে কক্সবাজারের চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন রবিবার নানা কর্মসূচী পালন করে। ভোরে পতাকা উত্তোলন, সকালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় দুই উপজেলা পক্ষ থেকে। পৃথকভাবে আয়োজিত এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমএ।
ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে রবিবার সকালে চকরিয়া উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সের সামনে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন এমপি জাফর আলম। এ সময় সাথে ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফজলুল করিম সাঈদী, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. তানভীর হোসেন, চকরিয়া পৌরমেয়র আলমগীর চৌধুরী, চকরিয়া থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ।
অপরদিকে সকালে পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন এমপি জাফর আলম। পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোতাচ্ছেম বিল্যাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন পেকুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যন ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি), পেকুয়া থানার ওসি মো. সাইফুর রহমান মজুমদার, উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান উম্মে কুলসুম মিনু, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আবু হেনা মোস্তফা কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সহ-সভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলামসহ সরকারী-বেসরকারী দপ্তরের পদস্থ কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক প্রমূখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ জাফর আলম বলেন, ‘৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতি মহান মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়েছিল। মুলত এই দিন থেকেই দেশকে স্বাধীন করার জন্য মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের অনুপ্রেরণা ছড়িয়ে পড়ে বাঙালির ঘরে ঘরে। সেই ঐতিহাসিক ভাষণের মাধ্যমে ঘুমন্ত বাঙালির মনে সাহস সঞ্চয় করেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
এমপি বলেন, বিশ্বের ইতিহাসে অনেক কালজয়ী ভাষণ শুনেছি। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর এই ভাষণ ছিল সর্বকালের সর্বসেরা। যার কারণে বাঙালি জাতি স্বাধীনতার চেতনায় সেইদিন থেকে মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়ে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •