cbn  

সংবাদদাতা:
স্বাধীনতার ৫০ বছরের পরবর্তি শিশুরা নিজেদের কিভাবে গড়ে তুলবে? বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বছর পার হয়েছে। জাতির পিতাকে ঘিরে শিশুদের মনে কি জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে? শিশুদের মনের এসব কিছুর উত্তর খুঁজতে এবং শিশুদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশপ্রেমিক হিসেবে গড়ে তুলতে জেলার শ্রেষ্ঠ জাতীয় শিশু কিশোর সংগঠন ঝিনুকমালা খেলাঘর আসর বছরব্যাপী ‘মুজিবর্বষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে শিশুদের অঙ্গীকার’ শীর্ষক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

উক্ত কর্মসূচি ৬ মার্চ ঝিনুকমালা খেলাঘর আসরের একাডেমি মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন খেলাঘর আসরের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নাসরিন মোজাম্মেল এমা। এসময় তিনি বলেন, আগামিতে দেশ পরিচালনাসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করবেন আজকের শিশুরা। তাই তাদের মনে স্বাধীনতার সঠিক বীজবপন করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে হবে। স্বাধীনতার ৫০ বছরে দেশের অনেক উন্নতি হলেও মৌলিকভাবে দেশের উন্নয়নে বর্তমান প্রজন্মকে হাল ধরতে হবে। তাই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে শিশুদের অঙ্গিকার কর্মসুচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এতে শতাধিক শিশু মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে তাদের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। শিশুরা তাদের অঙ্গিকারে বলেন, কেউ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে দেশের নেতৃত্ব দেবেন, কেউ বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে সারাদেশে প্রচার চালাবেন, কেউ দেশকে দুর্নীতিমুক্তি করতে লড়াই করবেন, কেউ দেশপ্রেমিক হয়ে দেশ উন্নয়নের সারথী হবেন, কেউ মানবিক মানুষ, কেউ অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়বেন, কেউ কর্মক্ষেত্রে সৎ ও কর্মঠো মানুষ হবেন, কেউ বঙ্গবন্ধুর গল্পের ফেরিওয়ালা হবেন, কেউ সোনার বাংলা গড়বেন। এভাবে শিশুরা তাদের নানা অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

এতে আলোচক ছিলেন কক্সবাজার জেলা খেলাঘরের সভাপতি আবুল কাশেম বাবু, সাধারণ সম্পাদক কলিম উল্লাহ কলিম, শিশু বক্তা আয়ান সম্রাট।

ঝিনুকমালা খেলাঘরের সভাপতি সুবিমল পাল পান্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় আরো অংশ নেন ঝিনুকমালা প্রশিক্ষণ একাডেমীর পরিচালক ডাঃ চন্দন কান্তি দাশ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দীপক শর্মা দীপু, সংগীত প্রশিক্ষক নুপুর বড়ুয়া, সংগঠক মোঃ আবছার, পিন্টু মল্লিক, নয়ন চক্রবর্তী, মিশু দাশ গুপ্ত, মোঃ সালাউদ্দিন, বৃষ্টি বড়ুয়া, মৈত্রী চক্রবর্তী,কাকন দে, অর্পিতা দাশ, ঝিলিক, মহী বিশ্বাস, আদ্রিক বিশ্বাস।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন হৃদিতা চৌধুরী ও সাবিহা সুলতানা জিপা।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •