আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে তার দেশের সেনাবাহিনী এবং পুলিশকে কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের ‘হত্যার’ মাধ্যমে ‘শেষ করে ফেলার’ নির্দেশ দিয়েছেন।

কমিউনিজমের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের লক্ষ্যে আয়োজিত এক সরকারি সভায় শুক্রবার (০৫ মার্চ) এ নির্দেশ দেন দুতার্তে।

খবর আল জাজিরার।
ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি সেনাবাহিনী এবং পুলিশকে বলেছি, যদি কখনো কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের সঙ্গে সশস্ত্র সংঘর্ষ হয় তবে তাদের হত্যা করো। এরপর নিশ্চিত হও যাকে গুলি করা হয়েছে তার মৃত্যু হয়েছে কি-না। যদি মৃত্যু না হয়ে থাকে তবে সেখানেই তাকে হত্যা করো।

তবে মরদেহগুলো যেন পরিবারে কাছে পৌঁছানো হয় সেটা নিশ্চিত করতে বলেছেন দুতার্তে। তিনি বলেন, ‘মৃত্যুর পর মরদেহগুলো যেন তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছানো হয় সেটা নিশ্চিত করতে হবে। ’

মানবাধিকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে তিনি বলেন, মানবাধিকারের তোয়াক্কা করতে হবে না। এটা আমার নির্দেশ। আমি জেলে যেতেও রাজি আছি। এটা কোনো সমস্যা নয়।

কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের উদ্দেশ্যে দুতার্তে বলেন, তোমরা সবাই দস্যু। তোমাদের কোনো আদর্শ নেই। এমনকি চীন এবং রাশিয়া, তারাও এখন পুঁজিবাদী রাষ্ট্র।

কমিউনিস্টদের হত্যার নির্দেশ দিলেও তাদের জন্য একটি সুযোগ রেখেছেন দুতার্তে। তিনি বলেন, যদি কমিউনিস্টরা বিরোধিতা বাদ দিয়ে অস্ত্র জাম দেয় তবে তাদের জন্য চাকরি, বাসস্থান এবং জীবিকার ব্যবস্থা করা হবে।

কমিউনিস্টরা ১৯৬৮ সাল থেকে ফিলিপিন্স সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে। দেশটির সেনাবাহিনীর হিসাব অনুযায়ী, এই বিদ্রোহকে কেন্দ্র করে ৫৩ বছরে ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণ গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •