cbn  

সিবিএন ডেস্ক:
বাংলাদেশের সরকার বন্যপ্রাণীদের বাঁচাতে নানা উদ্যোগ নিলেও দূষণ ও দখলে অনিরাপদ হয়ে পড়ছে তাদের আবাসস্থল। দেখা দিচ্ছে খাদ্য সংকট। খাবারের সংকটে বনের বাইরে বের হয়ে আসছে অনেক বন্যপ্রাণী। হুমকির মুখে পড়ছে স্থানীয় মানুষের জীবন ও জীবিকাও। এই অবস্থায় আজ পালিত হতে যাচ্ছে ‘বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস’। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করবে।

২০১৩ সালের ২০ ডিসেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৬৮তম অধিবেশনে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণী এবং উদ্ভিদের বাণিজ্য সম্মেলনে ৩ মার্চকে বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হিসেবে এসেছে ‘ফরেস্ট অ্যান্ড লাইভলিহুড: সাসটেইনেবল পিপল অ্যান্ড প্ল্যানেট’ যা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে করা হয়েছে, ‘মানুষ ও পৃথিবী বাঁচাতে: বন ও জীবিকা।’

দিবসটি উপলক্ষে বন ভবনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। আলোচনা সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি আগুনে পুড়েছে সুন্দরবনের প্রায় চার শতক বনভূমি। এ নিয়ে সুন্দরবনে ১৯ বছরে ৩১ বার আগুন লেগে পুড়ে গেছে প্রায় ১০০ একর বনভূমি। এসব অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে ছাই হয়েছে একরের পর একর বনভূমির গাছপালা, লতাগুল্ম। মারা গেছে বিভিন্ন প্রজাতির জীবজন্তু। আবাসস্থল হারিয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির বন্যপ্রাণী।

এদিকে সুন্দরবনের আশেপাশের নদীতে একের পর এক কয়লাবোঝাই কার্গো ডুবছে। সর্বশেষ পশুর নদীতে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে ৭শ’ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ডুবে যায় একটি কার্গো। দ্রুত উদ্ধারের উদ্যোগ কখনও নেওয়া হয় না উদ্যোগ বলে অভিযোগ আছে। এইভাবে গত ৪ বছরে এ ধরনের ছয়টি ঘটনায় সুন্দরবন এলাকার নদ-নদীর পানিতে প্রায় ৩ হাজার ৫শ’ মেট্রিক টন কয়লা ডুবেছে বলে জানায় খুলনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগ। এসব কয়লায় দূষিত হয়ে পড়ছে নদীর পানি।এই পানি খেয়ে অসুস্থ হচ্ছে বনের প্রাণীরা। একইভাবে শিল্পায়নের কারণে আবাসস্থলও কমে আসছ তাদের।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) তথ্যমতে, ৯০ দশকের পর থেকে শিল্পায়ন শুরু হয়েছে। প্রায় ১৪০টি শিল্প কারখানা করা হয়েছে। বাফার জোনের ভেতরেও করা হচ্ছে। এই বন থেকে মাত্র ১০ কিলোমিটার দূরে রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হচ্ছে। এসব কারণে অনিরাপদ হয় পড়ছে বন্যপ্রাণীর জীবন।

অন্যদিকে খাবারের খোঁজে বন থেকে বের হয়ে গ্রামে হামলা করছে হাতি, ভাল্লুক। ২৩ ফেব্রুয়ারি বান্দরবানের লামা উপজেলায় বন্য হাতির আক্রমণে বেবি আক্তার নামে এক বাক প্রতিবন্ধী নারীর মৃত্যু হয়। এদিকে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি বান্দরবানের চিম্বু‌কে পাহাড়ে জুমের কাজ কর‌তে গি‌য়ে ভাল্লু‌কের হামলার শিকার হ‌য়ে‌ আহত হ‌ন দুজন।

জানতে চাইলে বাপার সহ-সভাপতি আব্দুল মতিন বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরেই সুন্দরবন বাচাতে আন্দোলন করছি। দখল আর দূষণে বন্যপ্রাণীদের অস্থিত্ব এখন হুমকির মুখে পড়ছে। সরকার নানা উদ্যোগের কথা বললে বাস্তবে তার বাস্তবায়ন হচ্ছে খুবই কম।

এদিকে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় জানায়, তারা বাঘের নতুন আবাসস্থলের জন্য পার্বত্য অঞ্চলের কথা চিন্তা করছে। সেজন্য একটি সমীক্ষা করা হবে বলে জানা যায়। এছাড়া সুন্দরবনের প্রাণীদের খাবার পানির ব্যবস্থা করতে পুকুর কাটা হচ্ছে।

সুন্দরবনে বন্যপ্রাণীদের সুপেয় পানির চাহিদা মেটাতে জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ডের অর্থায়নে খনন করা হচ্ছে ৮৮টি পুকুর। এতে রয়েল বেঙ্গল টাইগার, মায়া হরিণসহ ৩৭৫ প্রজাতির প্রাণীর মিঠাপানির চাহিদা মেটাবে বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •