প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
অমর একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান শহিদ দিবস উপলক্ষ্যে শনিবার বিকেলে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ’ভাষা আন্দোলনঃ প্রেক্ষাপট ও প্রভাব” শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলরুমে ’ সেন্টার ফর বাংলাদেশ স্টাডিজ’ এর উদ্যোগে আয়োজিত উক্ত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক, গবেষক, সমাচোলক ও কবি বাংলা একাডেমি’র সাহিত্য পুরুষ্কার প্রাপ্ত লেখক ড. মোরশেদ শফিউল হাসান।

ড. মোরশেদ শফিউল হাসান তাঁর আলোচনায় বলেন, দীর্ঘ সংগ্রামের ভিতর দিয়ে সাম্প্রদায়িক ভাগভাটোয়ারার মধ্য দিয়ে ভারত ও পাকিস্তান নামক দুটি স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্ম হয়। কিন্তু তা ছিল স্বাধীনতার মরিচিকা মাত্র। পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার ১৫ দিনের মাথায় পাকিস্তান শাসকগোষ্ঠী ভাষা সংস্কৃতিতে আঘাত হানে। ১৯৪৮ থেকে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যনÍ বাংলা ভাষার জন্য ব্যাপক আন্দোলন সংঘটিত হয়। ভাষা শহীদদের রক্তের বিনিময়ে বাঙালিরা পায় রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা। যে ভাষার জন্য ভাষা শহীদরা রক্ত াদয়েছে সেভাষার মর্যাদা এখনো ভুলুন্ঠিত সর্বস্তরে বাংলা ভাষা এখনো প্রতিষ্ঠিত হয়নি। বাংলা ভাষাকে সার্বজনীন করতে হলে প্রয়োজন গণমূখী শিক্ষা, বাংলাভাষার মাধ্যমে সকলস্তরে সকল বিষয়ে শিক্ষাদান,সকল সরকারি বেসরকারি কর্মে মাতৃভাষার ব্যবহারের জন্য সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পাশাপাশি সামাজিক আন্দোলনের প্রয়োজন অপরিহার্য। আজকের সেমিনারে দাবি হোক সর্বস্তরে বাংলাভাষার প্রতিষ্ঠিতা।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য সচিব অধ্যাপক একেএম গিয়াস উদ্দিন, ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য সাবেক সাংসদ এথিন রাখাইন, ট্রেজারার অধ্যাপক আবদুল হামিদ।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিশিষ্ট গবেষক, লেখক অধ্যাপক গোলাম কিবরিয়া ভ’ইয়া।

সেমিনারে ভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রকাশিত স্মরকগ্রন্থ ’ঐতিহ্য’ গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •