cbn  

আবুল কালাম, চট্টগ্রাম :
সংশোধিত রেলওয়ে নিয়োগবিধি ২০২০ রেলওয়ের পোষ্য ও শ্রমিক-কর্মচারীদের অধিকার গলাটিপে হত্যার ষড়যন্ত্র। রেলওয়ে নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ রুলস মোতাবেক শ্রমিক বান্ধব রেলওয়ে নিয়োগ বিধি প্রণয়নসহ ১২ দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি।

১২ দফা দাবি আদায়ে আগামী ৮ মার্চ থেকে ২০২১ইং সোমবার সকাল ১১ টায় সকল বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার (লালমনিরহাট, পাকশী, ঢাকা, চট্টগ্রাম) বরাবর, ১৫ মার্চ ২০২১ইং সোমবার সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ রেলওয়ে জেনারেল ম্যানেজার (পশ্চিম রাজশাহী, পূর্ব চট্টগ্রাম) বরাবর, ২২ মার্চ ২০২১ইং সোমবার সকাল ১১টায় বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক বরাবর, ৪ এপ্রিল ২০২১ইং রবিবার সকাল ১১ টায় মাননীয় রেলপথ মন্ত্রী বরাবর এবং ১১ এপ্রিল ২০২১ইং রবিবার সকাল ১১ টায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি উদ্যোগে স্মারকলিপি পেশ করা হবে। ৮ মার্চ ২০২১ইং হইতে ১১ এপ্রিল ২০২১ইং পর্যন্ত দাবির স্বপক্ষে দেশব্যাপী রেলঅঙ্গনে মানববন্ধন, সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে।

আজ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ইং বুধবার সকাল ১১:৩০ মিনিটে ২৩ তোপখানা রোডস্থ বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভা শেষে উপরোক্ত কর্মসূচি ঘোষণা করেন বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনির। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির রাব্বি, অর্থ সম্পাদক মোছাঃ হাসিনা বানু, উপ-দপ্তর সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মানিক প্রমুখ।

বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির ১২ দফা দাবি নিন্মরূপ:
১. রেলওয়ে নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ রুলস এর আলোকে নিয়োগ ও পদোন্নতিতে ৪০% পোষ্য কোটা সংরক্ষণ ও বাস্তবায়ন। চাকুরী মেয়াদ ১৫ বছর পূর্ন হলেই তাদের সন্তানদের পোষ্য হিসাবে স্বীকৃতি সহ সকল গ্রেডে ৪০% পোষ্য কোটা রাখতে হবে।
২. রেলওয়ের সকল ট্রেড ইউনিয়নের দক্ষ ও অভিজ্ঞ বর্তমান সাবেক শ্রমিক প্রতিনিধি ও কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনাপূর্বক নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ রুলস মোতাবেক সংশোধিত রেলওয়ে নিয়োগ বিধি ২০২০ সংশোধনপূর্বক শ্রমিকবান্ধব রেলওয়ে নিয়োগ বিধি প্রণয়ন করতে হবে।
৩. সকল নিয়োগ কমিটিতে নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ রুলস মোতাবেক সংশোধিত নিয়োগ বিধি ২০২০ সংশোধন পূর্বক রেলওয়ের ভিতর থেকে সৎ ও যোগ্য কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে নিয়োগ বাছাই কমিটি গঠন করতে হবে।
৪. রেলের বিভিন্ন বিভাগ ও ট্রেড ইউনিয়ন থেকে সংশোধিত নিয়োগ বিধি ২০২০ এর যে সকল বিষয়ে সংশোধনের প্রস্তাব প্রদান করেছে তা অতি গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করে নিয়োগ বিধি ১৯৮৫ রুলস মোতাবেক সংশোধন করতে হবে।
৫. রেলওয়েতে সকল প্রকার আউটসোর্সিং এর নামে পকেট সোর্সিং বন্ধ করে সরাসরি স্থায়ী পদে নিয়োগ ও পদোন্নতির ব্যবস্থা রাখতে হবে।
৬. রেলওয়ের রাজস্ব আয় বৃদ্ধি ও রেলওয়ে পোষ্যদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে রেলওয়ের ভূমি লীজ প্রদান প্রক্রিয়া পুনর্গঠন করে অব্যবহৃত ভূমি রেলওয়ে পোষ্য সুপার মার্কেট, মৎস্য ও কৃষি প্রকল্পের মাধ্যমে রেলওয়ে পোষ্যদের বেকারত্বের অভিশাপ হতে মুক্তির লক্ষ্যে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সমিতি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির ন্যয় বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটিকে ভূমি লীজ প্রদানের দাবি জানাচ্ছি।
৭. কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী শ্রমিক-কর্মচারীর পোষ্যদের যোগ্যতানুযায়ী দ্রুততার সহিত নিয়োগ সম্পন্নকরণ এবং যে সকল পোষ্যদের নিয়োগ দীর্ঘদিন থেকে অকারণে আটকে আছে, তাদের নিয়োগ সম্পন্ন করতে হবে।
৮. নিয়োগ, ক্রয়, ঠিকাদারী কাজ ও প্রকল্প বাস্তবায়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধিসহ সকল প্রকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত টিম কর্তৃক দ্রুততম সময়ে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
৯. অবসরপ্রাপ্ত ও কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীদের আবাসনের জন্য ১০ শতাংশ করে পরিত্যক্ত রেল ভূমি লীজের মাধ্যমে স্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করার দাবি জানাচ্ছি।
১০. রেলওয়ের জনবল সংকট সমাধানে অসৎ সুবিধা গ্রহণ করে টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করে সকল জেলা থেকে অসহায়-দরিদ্র শ্রমিক-কর্মচারীর পোষ্যদের টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করার দাবি জানাচ্ছি।
১১. রেলওয়ে শ্রমিক-কর্মচারী ও পোষ্যদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকল্পে রেলওয়ে হাসপাতাল সমূহে আধুনিক চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।
১২. রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীর সন্তানদের স্বল্প ব্যয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের লক্ষ্যে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ন্যায় রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটিকে রেলওয়ে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, কারিগরী ও মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠায় রেল ভূমি লীজ প্রদান করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •