সিবিএন ডেস্ক:
লোহাগাড়ার চুনতি পানত্রিশা গ্রামে ছালেহা বেগম (৩২) নামের এক গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- চুনতি পান্ত্রিশা গ্রামের মু. ফরিদুল আলম (৪৫) ও তার স্ত্রী খুকি আকতার (৩২)।

জানা গেছে, সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) নির্যাতনের শিকার ছালেহা বেগমের আট বছরের ছেলে মহিম গ্রেপ্তারকৃতদের বাড়ির উঠানে খেলছিল। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মহিমকে তারা মারধর করেন। পরে মারধরের কারণ জানতে গেলে স্বামী-স্ত্রী দুজনে মিলে ওই গৃহবধূকে মারধর করে ওড়না দিয়ে প্যাঁচিয়ে গাছের সাথে বেঁধে রাখে। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল থেকে আহত ছালেহা বেগমতে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়ে ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত দুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

লোহাগাড়া থানার ওসি মো. জাকের হোসাইন মাহমুদ বলেন, উপজেলর চুনতি পানত্রিশায় গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •