সিবিএন ডেস্ক:
কুয়েতে সাজাপ্রাপ্ত লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মাদ শহিদ ইসলাম পাপুলের সংসদ সদস্য পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। কুয়েতের আদালত যেদিন তার শাস্তির রায় ঘোষণা করা হয়েছে সেদিন থেকেই (২৮ জানুয়ারি) তার পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সংসদ সচিবালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, লক্ষ্মীপুর-২ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম কুয়েতের ফৌজদারি আদলতে গত ২৮ জানুয়ারি তারিখে ৪ চার বছর সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদের বিধান অনুযায়ী সংসদ সদস্য থাকার যোগ্য নন। সে কারণে সংবিধানের ৭ (১) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রায় ঘোষণার তারিখ থেকে তার আসন (২৫ লক্ষ্মীপুর-২) শূন্য হয়েছে। জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী বিধির ১৭৮ (৪) বিধি অনুযায়ী লক্ষ্মীপুর-২ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যের আসন শূন্য সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হলো।

এর আগে বৃহস্পতিবার সংসদ সচিবালয়ে পাপুলের রায়ের কপি পৌঁছানোর পরই পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করেছে সংসদ সচিবালয়। ওই সময় স্পিকার ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছিলেন, বৃহস্পতিবার আমাদের কাছে সংসদ সদস্য শহিদ ইসলামের সাজার রায়ের কপি এসে পৌঁছেছে। ছুটির পর রায় পর্যালোচনা করে সংবিধান ও কার্যপ্রণালী বিধি অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী নৈতিক স্খলনজনিত কোন ফৌজদারী অপরাধে দুই বছর বা তার বেশি সময় সাজাপ্রাপ্ত হন তাহলে সংসদ সদস্য পদ বাতিল হবে।

প্রসঙ্গত, অর্থ ও মানবপাচারের মামলায় লক্ষ্মীপুরের এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে গত ২৮ জানুয়ারি কুয়েতের আদালত চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। এক মাসের বেশি সময় পরে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে তার কপি পৌঁছেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •