নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া :

চকরিয়া পৌর বাসটার্মিনাল মাদরাসা পড়ুয়া ছেলেকে মারধর পরবর্তী ঘটনার প্রতিবাদ করায় মাকেও কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে। দুইদফা হামলার ঘটনায় বাসটার্মিনাল সংলগ্ন কোচপাড়া গ্রামের কামাল উদ্দিনের স্ত্রী ছেনুয়ারা বেগম (৪০) ও ছেলে সাজ্জাদ মিয়া (১৫) আহত হয়েছেন। এক সপ্তাহের মধ্যে দুইদফা হামলার ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী ছেনুয়ারা বেগম বাদী হয়ে ১৭ ফেব্রুয়ারী চকরিয়া থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করেন।

এজাহারটিতে আসামি করা হয়েছে একই এলাকার মৃত মনির আলমের ছেলে বেলাল উদ্দিন, মো. জসিম উদ্দিন বুদু,বেলাল উদ্দিনের ছেলে আরিফুল ইসলাম, তার মা দিলদার বেগম, জসিম উদ্দিন বদুর ছেলে মিজানসহ অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে।

বাদী ছেনুয়ারা বেগম আর্জিতে অভিযোগ করেন, তার শিশু ছেলে সাজ্জাদ মিয়া সোসাইটি মজিদিয়া মাদরাসার সপ্তম শ্রেণীতে লেখাপড়া করছে। করোনাকালীন সময়ে সে লেখাপড়া বন্ধ থাকায় ফুটপাতে সিদ্ধ বাদাম বিক্রয় করে পরিবারে সহযোগিতা করছে।

কিন্তু অভিযুক্তরা আসামীগণ প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে তার শিশু ছেলের ব্যবসা বিনষ্ট করার কু-মানসে প্রথম ঘটনারদিন গত ৮ফেব্রুয়ারী রাত আনুমানিক ১১টার দিকে শিশু ছেলে সাজ্জাদকে চকরিয়া পৌরবাস টার্মিনালে আক্রমণ করে। পরে টার্মিনালের পিছনে নিয়ে বালির স্তুপে ফেলে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা চাপিয়া ধরে ও সর্বশরীরে কিল, লাথি, ঘুষি দিয়ে আছাড় মেরে জখম করে। এসময় তার কাছ থেকে নগদ ২,৭৬০ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এবিষয়ে স্থানীয়দের কাছে নালিশ দিলে অভিযুক্তরা ফের ক্ষিপ্ত হয়ে দুইদিন গত ১০ফেব্রুয়ারী সকালে বাদির বসতঘরে গিয়ে হামলা চালায়। এসময় বাদী ছেনুয়ারা বেগমকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় ছেলে সাজ্জাদ কান্নাকাটি করতে থাকলে তাহাকেও সর্বশরীরে এলোপাতাড়ী আঘাত করে। এজাহারে বাদি দাবি করেন, ঘটনার সময় বসতঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে ২০হাজার টাকার ক্ষতিসাধন এবং প্রায় ৩৫হাজার টাকা মূল্যের মালপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

বাদী ছেনুয়ারা বেগম জানান, ঘটনার পরপর স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চকরিয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মুহাম্মদ যুবায়ের বলেন, ঘটনার বিষয়ে অভিযোগটি পাওয়া গেছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। সত্যতা পেলে মামলা নিয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •