cbn  

এম.এ আজিজ রাসেল :

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বলেছেন, কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরী মাবুর উপর হামলা পরিকল্পিত। হামলার নেপথ্যে কারা জড়িত রয়েছে সেটা সবারই জানা। তাদের সময়মতো সমুচিত জবাব দেয়া হবে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। হামলার নেতৃত্বদানকারী রাজাকার পুত্র রুহুল কাদের মানিকসহ ৪ জন আসামীকে আটক করা হয়েছে। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারী) কক্সবাজার পৌরসভার হলরুমে প্যানেল মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরী মাবুর উপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন।
পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, প্রতিবাদ করার অধিকার সবার আছে। কিন্তু জঘন্য ঘটনা ঘটিয়ে প্রতিবাদ বা আন্দোলন করা যায় না। একজন রাজাকার সন্তান মানিকের নেতৃত্বে প্যানেল মেয়র মাবুর উপর হামলা করেছে। তাঁর মনে রাখা উচিত প্যানেল মেয়র মাবু জলের স্রোতে ভেসে আসেনি। সে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিল। সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্বও সে সততা ও নিষ্টার সাথে পালন করেছে। বর্তমানে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছে। হঠাৎ নেতা হওয়ার স্বপ্ন দেখা কুচক্রী মহলের ভাবা উচিত এটি বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশ। এখানে অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীর কোন জায়গা হবে না।
মেয়র বলেন, দীর্ঘদিন কক্সবাজার পৌরবাসী উন্নয়ন বঞ্চিত ছিল। আমি আসার পর পৌর পরিষদের সবাইকে সাথে নিয়ে সবকিছু নতুন করে সাজাচ্ছি। বর্তমানে পরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রম চলছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সব সড়ক ঢালাইয়ের কাজ শেষ হবে। স্ট্রীট লাইটে আলোকিত সড়ক-উপসড়ক। পৌরবাসীর জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। পৌর এলাকার প্রতিদিনের বর্জ্য বান করে ফেলা হচ্ছে। পৌর পরিষদ নতুন ৫০০ টমটমসহ মোট ৩ হাজার টমটম সড়কে চলাচলের অনুমোদন দেবে। বাকি ৭ হাজার টমটম চলতে দেয়া হবে না। তাছাড়া ভবিষ্যতে আর সড়কে টমটম থাকবে না। পর্যটন শহরে অচিরেই চলাচল করবে অত্যাধুনিক গাড়ি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র-২ হেলাল উদ্দিন কবির, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জল কর, কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদ, কাউন্সিলর আকতার কামাল, কাউন্সিলর নুরুল ইসলাম মাঝু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, কক্সবাজার পৌরসভার সচিব রাসেল চৌধুরী ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা খোরশেদ আলম।
কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ হেলাল উদ্দিন কবির বলেন, প্যানেল মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরী মাবুর উপর হামলার প্রতিবাদে কক্সবাজার পৌরসভার সকল সেবা সাময়িক বন্ধ থাকলেও পরবর্তীতে তা সচল করা হয়।

এদিকে হামলার ঘটনায় কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পক্ষে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ পৌরসভা সর্ভিস এসোসিয়েশন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •