cbn  

খোরশেদ হেলালী :

কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালীতে অসহায় এতিমের ২০ বছরের দখলীয় খতিয়ান ভুক্ত জমি রাতের আধারে জবর-দখলের অপঃচেষ্টা চালিয়েছে  বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে কলেজ ছাত্রী সহ ৪ জন গুরুতর আহত হয়েছে। ভাংচুর করা হয়েছে দোকান, ঘর ও অবকাঠামো লুট করা হয়েছে। গত ১০ ফেব্রুয়ারী রাত ২ ঘটিকার সময় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় মৃত আব্দুল হাকিমের পুত্র মোঃ নূর(৩২) এর নেতৃত্বে ২০-২৫ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল অর্তকিত ভাবে হামলা করে দোকান ও বসত ঘরের টিন ও ঘরের গ্রীল ভেংগে চুরমার করে দিয়ে চলে যায়। ঘরে অবস্থানকৃত কলেজ ছাত্রী সহ ৪ জন মহিলদের কে বন্দুকের বাট, লোহার রড়, দা, চুরি, ক্রিস দিয়ে মেরে রক্তাক্ত করে । এমন কি মহিলাদের গলায় থাকা স্বণের্র চেইন দামি মোবাইল সহ যার আনুমানিক বাজার মূল্য ২,৭০,০০০/- টাকা লুট করে নিয়ে যায়। ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা ওই দিন রাতে ২০-২৫ রাউন্ড গুলি ছুডে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে। পরে আহতরা ৯৯৯ এ কল দিলে দ্রুত কক্সবাজার মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। কক্সবাজার সদর থানার উপ-পরিদর্শক ফরিদুল আলম ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা উদ্ধার করেছেন।

বর্তমানে ঘটনাস্থলে আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতরা হলেন মৃত আবুল বশরের স্ত্রী অসহায় এতিম জাহেদ ও শাহেদ এর মা হাসনারা বেগম (৪৩), ও তার বোন কক্সবাজার সিটি কলেজে অধ্যয়নরত কলেজ ছাত্রী শানিলা হাসনাত(২০), সোমাইয়া ফেরদৌস তাফসি (১৪), ও জিন্নাত আরা বেগম (৩২)। বর্তমানে উক্ত ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী নাম প্রকাশ না করার শর্তে সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার পর থেকে প্রতি রাতে মোঃ নুর এর নেতৃত্বে গুলি ছুড়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করেন। উক্ত ন্যাক্কার জনক ঘটনায় এতিমদ্বয়ের মাতা হাসনারা বেগম বাদী হয়ে মোঃ নুর(৩২) কে প্রধান আসামী করে ৮/১৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত এজাহার দায়ের করেছেন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ইন্সেপেক্টর (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জবরদখল কারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার রজু হয়েছে । যার নং -৩৩/৯৪। দ্রুত আসমী সন্ত্রাসী জবরদখলকারীদের ধরার জন্য পুলিশ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এলাকার  মুরব্বি মোঃ কবির আহমদ সাংবাদিকদের জানান ,আমরা প্রায় ২০ বছর যাবৎ দেখে আসছি উক্ত জায়গাটিতে দোকান ও ঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন এতিমদ্বয়ের পরিবার। হঠাৎ করে রাতের আধারে গুলি ছুড়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে দোকন ঘর ভাংচুর ও কলেজ ছাত্রীদের কে শ্রীলতাহানী করায় এলাকাবাসী কে ভাবিয়া তুলেছেন।

সাবেক মেম্বার ছৈয়দ আলম জানান,  ২০ বছর ধরে উক্ত জমিটিতে মৃত আবুল বশরের এতিম ছেলেদ্বয় দোকান ও ঘর করে শান্তিপূর্ণ ভাবে সকলের জ্ঞাতসারে ভোগ দখলে ছিলেন ও আছেন। কিন্তু হঠাৎ ১০ ফেব্রুয়ারী রাতের আধাারে অস্ত্র সশস্ত্র নিয়ে মৃত আব্দুল হাকিম এবং পুত্র মোহাম্মদ নুর এর নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে হামলা চালিয়ে কলেজছাত্রী সহ ৪ জন কে রক্তাক্ত করে রাতের আধারে জবরদখল করতে হামলা চালিয়েছেন। মূলত জমির মালিক জাহেদ ও শাহেদ তাদের নামে ২১২৩/২০১৮ইং নামজারি মূলে সৃজিত খতিয়ান যার নং- ৩২৩৬ চুড়ান্তভাবে প্রচার হয় যার দাগ নং- দুই দাগে মোট ০৮ শতক জমি ।

বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছেন। যেকোন মূহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে। অস্ত্র ধারী সন্ত্রাসী জবরদখলকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •