cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

প্রাণের উচ্ছ্বাসে, গুনীজনদের সমবর্ধিত করার মাধ্যমে, হৃদয়ছোয়া আনন্দে, নান্দনিক আয়োজনে, মনোমুগ্ধকর সঙ্গীতের মূর্ছনায় সর্বোচ্চ বিনোদন দেওয়ার সফল প্রচেষ্টায় সম্পন্ন হয়েছে কক্সবাজার শহরের বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাবাসীর উদ্যোগে আয়োজিত মিলনমেলা ও গুনীজন সমবর্ধনা। বৃহস্পতিবার ১১ ফেব্রুয়ারী দিবারাত্রি ব্যাপক আয়োজনে দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাস্থ চেয়ারম্যান ঘাটা মাঠে এ বর্নাঢ্য আয়োজন সম্পন্ন হয়। নান্দনিক সব আয়োজনে ভরপুর ছিলো মনমাতানো পুরো অনুষ্ঠান। সবার মাঝে বয়ে যায়-প্রাণের উচ্ছ্বাস। হৃদ্যতাপূর্ণ, ঘনিষ্ঠ ও প্রাকৃতিক দৃশ্যে সৃষ্টি হয় এক আবেগময় পরিবেশ।ব্যতিক্রমী ও নান্দনিক সব আয়োজনে মুখরিত হয়ে উঠে পুরো বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরা। তৈরি হয় উৎসবের আমেজ।

এ মেগা অনুষ্ঠানমালা বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় মিলনমেলার অন্যতম উদ্যোক্তা, বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাবাসীকে এক সামিয়ানার নীচে একত্রিত করার সফল কারিগর, সুপ্রীম কোর্টের তরুণ আইনজীবী ব্যারিস্টার আবুল আলা ছিদ্দিকী’র সভাপতিত্বে অনুর্ধ ১৫ বছর বয়সী নিয়মিত ১০ জন মুসল্লীকে নামাজের জন্য আরো উৎসাহিত করার লক্ষ্যে মধ্যে পবিত্র কোরআন বিতরনের মাধ্যমে বিশাল এ আয়োজনের শুভ সূচনা করা হয়। যাদের মধ্যে পবিত্র কোরআন বিতরন করা হয় তারা হলো : তানজিবুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মোহাম্মদ নুরুল কবির, সোহান, সোয়াইব, তাজিম, আঈমান, আতিক হাসান, মুসাহাব ও তানজীব।

“প্রাণে প্রাণ মেলাবোই” শ্লোগানে মোহাম্মদ সেলিমের নান্দনিক সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বর্নাঢ্য এ আয়োজনে পবিত্র কোরআন শিক্ষায় নিয়োজিত বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালির ছরার মসজিদ ভিত্তিক ফোরকানিয়া মাদ্রাসার ৭ জন কৃতি শিক্ষকদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। যাঁদের ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা দেওয়া হয়, তারা হলো-দক্ষিণ রুমালির ছরা জামে মসজিদের হাফেজ নুরুল আবছার, এবিসি ঘোনা মসজিদে বায়তুল্লাহ কমপ্লেক্সের হাফেজ মাওলানা আব্দুল্লাহ, সমিতি বাজার জামে মসজিদের
মৌলানা জসিম উদ্দীন, বাঁচা মিয়ার ঘোনার জামে মসজিদের মৌলানা আবুল কালাম, আশুর ঘোনা জামে মসজিদের হাফেজ আব্দুল মজিদ, টেকনাফ পাহাড় জামে মসজিদের মাওলানা আব্দুর রহমান ও সবুজবাগ জামে মসজিদের হাফেজ মৌলানা সাইফুল ইসলাম কুতুবী।

কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউবিন ছিদ্দিকী এম বি এ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নুসরাত জাহান রেশমী এম এ (ইতিহাস), কলেজ পর্যায়ে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ককসবাজার সরকারী কলেজ আবদুল্লাহ আল মামুন, এম বি এ (ব্যবস্থাপনা), ককসবাজার সরকারী কলেজের মিনহাজ উদ্দিন, ২য় বর্ষ (সম্মান), হিসাব বিজ্ঞান ও ককসবাজার সরকারী কলেজের তানজিম ওসমানী সুবাহ, ২য় বর্ষ (মানবিক), মাধ্যমিক পর্যায়ে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীগণের মধ্যে কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মরজিয়া হাসান রুহি, দশম শ্রেণী, কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের আদিবা জাহান ছিদ্দিকী তানহা,৮ম শ্রেনী, প্রাথমিক পর্যায়ে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীগণের মধ্যে আবু বকর ছিদ্দিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মোছাম্মৎ রুবাইয়া, ৪র্থ শ্রেনী, আবু বকর ছিদ্দিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রোজিনা আক্তার, ৩য় শ্রেনী, নুরানী মাদ্রাসা পর্যায়ে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে হযরত মায়মুনা (রা.) নুরানী মাদ্রাসার আবু জর মুহাম্মদ মুবাশ্বির, ৩য় শ্রেনী, হযরত মায়মুনা (রা.) নুরানী মাদ্রাসার নাফিসা বিনতে মুহিব, ৩য় শ্রেনী, হযরত মায়মুনা (রা.) নুরানী মাদ্রাসার খাতূনে জান্নাত তারান্নুম, ৪র্থ শ্রেনী, হাফেজ পর্যায়ে কৃতি ছাত্র আলী আজাদ ও সিহাবুদ্দিনকে ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা দেওয়া হয়।

এলাকার বীর মুক্তিযাদ্ধা ও মুরুব্বীদের মধ্যে বীর মুক্তিযাদ্ধা সুবেদার মেজর (অব:) নুরুল হুদা বীর প্রতীক (মরণোত্তর), মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান (মরণোত্তর), অধ্যক্ষ মমতাজুল হক, মাস্টার আব্দুর রহিম, মিয়া হোসেন ও ফয়জুল হুদাকে সম্মাননা দেওয়া হয়। এলাকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ব্যাপক অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাস্থ শহর পুলিশ ফাঁড়ির আই সি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন-কে সম্মাননা প্রদান করা হয়। বীর মুক্তিযাদ্ধা সুবেদার মেজর (অব:) নুরুল হুদা বীর প্রতীক (মরণোত্তর) এর পক্ষে তাঁর সন্তান নাজমুল হুদা নজু এবং মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান (মরণোত্তর) এর পক্ষে তাঁর সন্তান মিজানুর রহমান সম্মাননা গ্রহণ করেন।

কবর খননের জন্য দেড় সহস্রাধিক কবর খননকারী আব্দুর রহমান ও মোজাম্মেল হককে ব্যতিক্রমী সম্মাননা দেওয়া হয়। স্বেচ্ছায় রক্ত দানকারী, ফ্রী ব্লাড গ্রুপিং ও ফ্রী মাস্ক বিতরণকারী সামাজিক সংগঠন “বন্ধন” কেও দেওয়া বিরল সম্মাননা। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন-দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাস্থ শহর পুলিশ ফাঁড়ির আই সি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-অধ্যক্ষ মমতাজুল হক, দৈনিক ইনকিলাব এর কক্সবাজার ব্যুরো প্রধান, সিনিয়র সাংবাদিক শামসুল হক শারেক, সাংবাদিক নুরুল ইসলাম হেলালী প্রমুখ।

দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাবাসীর পরস্পর বন্ধন আরো সুদৃঢ় করার আশায়, হৃদয়ের স্পন্দনে উৎসবের আমেজে এরকম বাহারী অনুষ্ঠান প্রতিবছর আয়োজনের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়। পরে দীর্ঘক্ষনের আকর্ষনীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইতি টানা হয় দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাবাসীর মেগা মিলনমেলা ও গুনীজন সমবর্ধনার।

অনুষ্ঠানমালা সফল করতে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করায় শওকতুল আলম, বেলাল, গিয়াস, শাহ আলম, আমির হামজা, রকি, রনি, মিজান, মহসীন, নুর মোহাম্মদ, জাহাংগীর, জোবায়ের সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাবাসী সংগঠনের পক্ষে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন-বৃহত্তর দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরার গর্বের ধন, সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার আবুল আলা ছিদ্দিকী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •