cbn  

অনলাইন ডেস্ক : যারা অনলাইনে করোনার টিকা দেয়ার জন্য আবেদন করতে পারছেন না, তাদের স্পট রেজিস্ট্রেশনে সহায়তা করবে স্বাস্থ্য বিভাগ।

গত শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করেছে ২ লাখ ৪৬ হাজার ২শ’ ৬৭ জন। এদিকে, রবিবার দেশ জুড়ে টিকা কার্যক্রম শুরু করতে সব ধরণের প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। এছাড়া, চার সপ্তাহ পরই করোনার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আগামী রবিবার (৭ই ফেব্রুয়ারি) সকাল নয়টা থেকে সারা দেশে এক যোগে করোনার টিকা প্রয়োগ শুরু হবে। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ও দক্ষিণ সিটির ১৯ টি কেন্দ্রে তিনশত’র বেশি টিম টিকা প্রয়োগে কাজ করবে। তবে রেজিস্ট্রেশনের জন্য ৪ঠা ফেব্রুয়ারি অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে আসার কথা থাকলেও তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

তাই যারা করোনার টিকা পেতে অগ্রাধিকারের তালিকায় রয়েছেন এবং অনলাইনে আবেদন করতে পারছেন না তাদের স্পটে রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘গুগল অ্যাপ আসার কথা ছিল সেটা এখনো আসেনি এবং এটা এখন একটু অনিশ্চয়তা মধ্যে পড়েছে। আইসিটি মন্ত্রনালয় আমাদের এখনো এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলেন নি। তবে ওয়েব সাইডের মাধ্যমে এটা চলমান আছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘যারা অন স্পট রেজিস্ট্রেশন করবেন তারা ওইদিন টিকা নাও নিতে পারেন। এটা ওই সেন্টারের ওপর আসলে নির্ভর করবে। দু-একদিনের মধ্যেই ডেট দিয়ে তার টিকা দেয়া যেতে পারে।’

প্রথম টিকা নেয়ার ৮ সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেয়ার পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২৭ ও ২৮ শে জানুয়ারি যারা টিকা নিয়েছেন তারা সবাই সুস্থ আছেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •