আলমগীর মানিক,রাঙামাটি :
হ্রদ-পাহাড়ের জেলা পার্বত্য রাঙামাটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে গিয়ে সুউচ্চ ফুরোমোন পাহাড়ের আরোহনের পর পাশর্^ক্তো গভীর অরণ্যে পথ হারিয়ে ফেলা ছয় শিক্ষার্থীকে ৯৯৯ এর মাধ্যমে খবর পেয়ে উদ্ধার করেছে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর যৌথটিমের সদস্যরা। রাঙামাটিতে সদর সার্কেলের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাপস রঞ্জন ঘোষ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন কুমিল্লার দাউদকান্দির বাসিন্দা আব্দুল্লাহ হক(২৭) মো: নাজমুল হাসান(২৪), রাজশাহী গোদাগাড়ির নাইমুর রহমান(২৪), ঢাকার বংশাল এর সাজ্জাদ ওয়াসিফ খান(২৩), ইজাজ ইবনে ইমন(২১) ও লক্ষ্মীপুর রামগঞ্জের বাসিন্দা রেদোয়ান আহমেদ(২৪) এই ছয়জনকে আমরা মধ্যরাতে উচুঁ পাহাড়ের নির্জন অরন্য থেকে উদ্ধার করেছি। তিনি জানিয়েছেন, তারা ৬ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, জীবন তাদের কাছে এডভেঞ্চারময়, ঢাকা থেকে রাঙামাটিতে ‘এডভেঞ্চারে’ এসেছেন!এডভেঞ্চার করবেন গভীর অরণ্যে তাই তারা কোন হোটেলও ভাড়া করেননি এমনকি তারা জানেনও না সুউচ্চ পাহাড়ে রাতের নির্জনতা কেমন হতে পারে!রাঙ্গামাটির সুউচ্চ পাহাড় ফোরোমনে রাতের বেলা তারা পথ হারিয়ে ফেলেন, অনেকের মোবাইলের চার্জও শেষ হয়ে আসে, নেটওয়ার্কও অত্যন্ত দূর্বল! উপায়ন্তর নাপেয়ে তারা ফোন করলেন পুলিশ সদর দপ্তরের ৯৯৯ এ।
৯৯৯ থেকে রাঙামাটি কোতোয়ালি থানায়, থানার ওসি জানালেন আমাকে,জানানো হল সেই পাহাড়ের পাশে মানিকছড়ি পুলিশ ক্যাম্পকে। পুলিশ সুপার মীর মোদদাছ্ছের হোসেন স্যারকে অবহিত করা হলে স্যারের পরামর্শে সার্কেল এডিশনাল এসপি হিসেবে যোগাযোগ করলাম পাহাড়ের সেনা ক্যাম্পের দায়িত্বরতদের সাথে,ক্যাম্পের আইসি এসআই ইসতিয়াকও পুলিশ সদস্যদের নিয়ে অবস্থান নিল পাহাড়ের পাশে। অবশেষে কয়েক ঘন্টার চেষ্টায় উচুঁ পাহাড়ে উঠে তাদের উদ্ধার করা হয় গভীর রাত্রে।
শনিবার শিক্ষার্থীদেরকে সেনা ক্যাম্প থেকে পুলিশ সদর সার্কেল অফিসে নিয়ে আসা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তাপস রঞ্জন ঘোষ তাদের এই দুঃসাহসিক অভিযানের বর্ণনা শুনেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করেন। এসময় শিক্ষার্থীরা দ্রুততার সহিত ৯৯৯ এর মাধ্যমে পুলিশী সেবা পেয়ে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •