cbn  

আমির হোসেন, ঈদগাঁও:
কক্সবাজার সদর ইসলামাবাদ ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক শাহ-ফকির বাজার-গজালিয়া সড়ক। গতবছরের শুরুর দিকে টেন্ডারের মাধ্যমে রাস্তা প্রশস্তকরন ও সংস্কার কাজ শুরু হয়।
কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের গাফিলতি আর অবহেলার কারণে বর্তমানে কাজ বন্ধ থাকায় সৃষ্টি হয়েছে চরম দুর্ভোগের। ৫কিমির মধ্যে প্রায় ৪ কিমি রাস্তা তুলে ইটের খোয়া ও বালি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এরপর দীর্ঘদিন যাবত রাস্তায় নিয়মিত পানি না দেওয়ায় দিনে-রাতে উড়ছে ধুলা-বালির কুয়াশা আর সৃষ্টি হয়েছে ছোট বড় গর্তের। এতে করে প্রতিদিনই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। এছাড়াও রাস্তার কাজের মান নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্নের।
সূত্রে জানা গেছে, শাহ-ফকির বাজার থেকে গজালিয়া সড়কটি ৫ কিলোমিটার। শাহ-ফকির বাজার-গজালিয়া রাস্তাটি প্রশস্তকরন ও সংস্কারের জন্য প্রায় আড়াই কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। আর গত বছরের শুরুর দিকে দরপত্রের মাধ্যমে সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু করা হয়। কাজের শুরুতেই অগ্রগতি ভালো থাকলেও বর্তমানে কাজের কোন অগ্রগতি নেই।
কাজের শুরু থেকেই নানা কারণে কাজ বন্ধ হয়েছে বহুবার। গজালিয়ার এলাকার ব্যবসায়ী দুদু মিয়া বলেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ১দিন কাজ করলে আর ২মাস কোন খবর থাকে না। কিন্তু বর্তমানে রাস্তায় নিয়মিত পানি না দেওয়ায় ধুলা আর বালির কুয়াশার কারণে চলাচল করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। কিছুদুর গেলেই ধুলা আর বালি দিয়ে গোসল হয়ে যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলাচল করা শিক্ষার্থীরা।
পথচারী নুরুল হাকিম, বাদশা, সাইফুল ইসলামসহ অনেকেই বলেন এই রাস্তার যে পরিমাণ কাজ হয়েছে তাতে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে যে কাজ কেমন হয়েছে। কারণ কোনমতে রাস্তার উপরের ইট দেওয়া অংশটি তুলে রাস্তায় যা ছিলো সেগুলো উপর দিয়েই রোলার দিয়ে রাখা হয়েছে। এই সড়কের হাজার হাজার মানুষকে প্রতিদিনই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। আর ঘটেই চলেছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত সংস্কার কাজ শেষ করার আহ্বান জানান এলাবাসী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •