মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদেরকে করোনা ভ্যাকসিন এর ‘অগ্রাধিকার’ তালিকার আওতায় আনতে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিবকে পত্র দেওয়া হয়েছে। গত ২৬ জানুয়ারী সমিতির সভাপতি এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ এর স্বাক্ষরে এই পত্র পাঠানো হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির অনেক সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং হচ্ছেন। অনেকে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে প্রেরিত পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। আদালত অঙ্গন পাবলিক স্পেস হওয়ায় করোনা’র দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এ অবস্থায় কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের-কে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনা ভ্যাকসিন এর আওতায় আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য সেবা সচিবকে পত্রে অনুরোধ করা হয়েছে। কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষকে পত্রের অনুলিপি দেওয়া হয়েছে।

সরকার যে ১৫ ক্যাটাগরীর নাগরিককে করোনা ভ্যাকসিন এর ‘অগ্রাধিকার’ আওতায় এনেছে, তাতে জেলা পর্যায়ের আইনজীবী সমিতির সদস্যরা নেই। তবে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল এর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুধুমাত্র সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যদের করোনা ভ্যাকসিনের অগ্রাধিকার তালিকায় আনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড অ্যাষ্ট্রাজেনেকার “কোভি শিল্ড” টিকা সোমবার ৩১ জানুয়ারী কক্সবাজারে ৮৪ হাজার ডোজ পাঠানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •