আব্দুর রহমান খান 

জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব এন্থনিও গুতেরেস সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, কয়েক দশক ধরে চলমান কাশ্মীর সংকট অস্ত্র দিয়ে সমাধান করা যাবেনা।

পারমানবিক শক্তিধর দুই প্রতিবেদশী দেশ – পাকিস্তান অ ভারতকে আহবান জানয়ে তিনি বলেছেন, তারা যেন একত্রে বসে গুরুত্বে দিয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে । এ ব্যাপারে মহাসচিবের অফিস দু পক্ষের র মধ্যে সমঝোতা করতে সদা প্রস্তুত।

নতুন বছরের প্রথম সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানি বার্তা সংস্থা এপিপি ‘র সাংবাদিক ইফতেখার আলি’র প্রশ্নের জবাবে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব আজ বলেছেন কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে সঙ্ঘাত এ অঞ্চলের জনগণ এবং গোটা বিশ্বের জন্য ভয়ানক দুর্ভোগ বয়ে আনবে।

এদিকে, আজ শুক্রবারও ভারতীয় নিরাপত্তবাহিনীর সাথে গোলা-গুলিতে দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলোয়ান জেলায় তিনজন মুজাহিদ যোদ্ধা নিহত হয়েছেন।

কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিসে’র খবর অনুসারে, ভারত দখলকৃত কাশ্মীরে নিয়মিতভাবেই ঘেরাও-তল্লাশি অভিযান পরিচালনা করছে ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনী । এসব তল্লাসি অভিযানের নামে জনজীবনে দুর্বিষহ অবস্থা সৃষ্টি করা হচ্ছে। আজ বিকেল নাগাদ শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলোয়ান জেলা , বারমুল্লা জেলা ও সোপিয়ান জেলায় এরকম অভিযান চালিয়ে কয়েকজন যুবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছ ।

এর আগে, গতরাতে রাজৌরিতে একটি মন্দিরের পাশে বোমা বিস্ফোরণের পর ঘেরাও তল্লাশি অভিযান চালানো হয়।

জাতিসংঘ গৃহীত প্রস্তাব মানার দাবি ডিপিএম-এর

এদিকে, জম্মু-কাশ্মীর ডেমোক্রাটিক পলিটিকাল মুভমেন্ট (ডিপিএম) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারতীয় সরকারী বাহিনী কাশ্মীরে মুক্তি আন্দোলন দমাতে গিয়ে নিরপরাধ কাশ্মীরি যুবকদের হত্যা করছে, নির্যাতন করছে এবং গুম করে দিচ্ছে।

ডিপিএম চেয়ারম্যান খাজা ফিরদউস তার বিবৃতিতে দাবি করেছেন, ভারতীয় দখলদার বাহিনী প্রতিদিন নিয়মিত ঘেরাও-তল্লাসী অভিযান চালিয়ে যুবকদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে। তবে, ফ্যাসজিস্ট মোদী সরকার তার বন্দুকের শক্তি দিয়ে কাশ্মীরিদের মুক্তির আন্দোলন দমিয়ে রাখতে পারবেনা ।

এ সময় কারাগারে আটক হুররিয়াত নেতাদের কষ্ট এবং অসুস্থতার কথা বিবেচনা করে তাদের মুক্তির দাবি করেন ডিপিএম চেয়ারম্যান ।

তিনি বিশ্ব সম্প্রদায়েরর প্রতি অনুরোধ করেন তারা জেনো ভারতের ওপর এ ব্যাপারে চাপ প্রয়োগ করে যাতে কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং গণহত্যা বন্দ করা হয়।

খাজা ফিরদউস দাবি করেছেন, কাশ্মির প্রশ্নে জাতিসংঘ গৃহীত প্রস্তাবনা অনুযায়ী এ অঞ্চলে শান্তি স্থাপন করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •