নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
পর্যটক দম্পতিকে ছিনতাইকারীদের হাত থেকে রক্ষা করতে গিয়ে শহিদুল ইসলাম নিহাদ (১৮) নামের যুবক ছুরিকাহত হয়েছেন।

তাকে গুরুতর অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

তিনি কক্সবাজার শহরের বাহারছড়ায় এলাকার মৃত হানিফের ছেলে।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে শহরের হোটেল লেগুনা বীচ এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটেছে। নিহাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কফিল উদ্দিন (২২) ও আজিজুল করিম (২০) নামের দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী রায়হান ও বাহাদুর নামে দুই ব্যক্তি জানিয়েছেন, ৮ জনের সংঘবদ্ধ একটি ছিনতাইকারী দল পর্যটক দম্পতিকে জিম্মি ও তাদের কাছ থেকে মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পর্যটক দম্পতিকে রক্ষা করতে গিয়ে শহিদুল ইসলাম নিহাদকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী দল। এতেই তার বুক ও পেটে মারাত্মক জখম প্রাপ্ত হন। ঘটনাস্থল থেকে তাকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় জনতা কফিল উদ্দিন ও আজিজুল করিম নামের দুই ছিনতাইকারীকে আটক করলেও পালিয়ে যায় আরো ছয়জন।

খবর পেয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে।
জনতার হাতে ধৃত কফিল উদ্দিন ও আজিজুল করিমকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

তবে, পুলিশের দাবি ভিন্ন।
বন্ধুদের দুইপক্ষের মধ্যে বিরোধের কারণে এমন ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে তারা তথ্য পেয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, বন্ধুদের মধ্যে পারস্পরিক বিরোধ নিয়ে একে অপরকে ছুরিকাঘাত করে। এতে একজন গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে রেফার করা হয়েছে বলে শুনেছি।

ওসি বলেন, ছিনতাইয়ের মতো কোনো ঘটনা ঘটেছে কিনা পুলিশ নিশ্চিত নয়।
তবুও বিস্তারিত তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •