আলমগীর মাহমুদ

যদি প্রশ্ন করেন কোন জ্বালায় জল খোঁজছেন! উত্তর সহজ, যে জ্বালার কথা কইলে লোকে পুরান ভাববে, Upgrade নয় বলে প্রজন্ম মুচকি হাসবে, এনালগ জমানার অচল মুদ্রার পাওন মাটির ব্যাংক বলে রেখে দিবে, সে ভাবনায়।

…………, খুইল্যা কঁ-ন যাইত ন?

এমন জমানায় আসছিলাম যখন…

সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি
সারাদিন আমি যেন ভাল হয়ে চলি।
আদেশ করেন যাহ, মোর গুরুজনে
আমি যেন সে কাজ করি ভাল মনে।……..

এমন পাঠ প্রজন্মের নীতিনৈতিকতার আর,সি,সি পিলারে দেয়া হতো। দিনবদলের পালায় আজ আমাদের প্রজন্মের যারা তাদের দেখলেও আস্তে করে জিজ্ঞেস করন লায়, তুমি কি সে আগের মতো আছো!

বদলে সঙ্গদিতে না পারলে মানুষ ট্রেক আউট হয়ে যায়। সমাজব্যবস্থায় পড়ে দিয়াকূলে। তাই তালে তাল মেলাতেই মানুষ মরিয়া।

ক্যারিয়ার ওয়াল্ডে মেধার কদর ছিল তোলায় রতিতে। আজকালকার ফিনান্সিয়াল ওয়াল্ডে মেধাবীরা বেকায়দায়। সৃষ্টির চেয়ে তাল মেলালেই রাখে সবাই নইলে আউট!

আমাদের সময়ে “I LoVE YOU” কথাটা বেয়াদইপ্যা কথা । ময় মুরুব্বিদের সামনে বলন যাইত না। আদবের বরখেলাপ। সে “Love” কবে ” Miss” হয়ে গেল কাউরে জানতেও চাইনি। সে যদি বুইঝ্যা যায় আমি Love জমানার মানুষ, খবর আছে।

তৃষ্ণায় কাতর মানুষ সাগরের পানি পানের ভাণে কই “I miss you ” তৃষ্ণাতো মিঠেনা মিঠেনা অবচেতন মনে ” I Love you” এর জন্য কইলজ্যা পুরে (পোঁড়ায়)।

স্কুলজীবনে স্যারেরা কইত 3w যার জীবনে সে শেষ। 1. w–women 2. w- wine 3. w–war , এখন 3w যার জীবনে যোগ হয়নি সে ঠিকানাহীন । www. alamgir83cox@gmail. চম

আমাদের ছেলেবেলায় জ্বিন পরীর আছরের নজরে নারীরা হুশ হারাতো । গ্রামে বইদ্য-ওজা হাঁট গাছা করতো। জারুল গাছ ভিটায় থাকলে জ্বিন পরী বাসা করবে।তাদের পছন্দের গাছ ভেবে জারুলগাছ কেটে সাবাড় করা হতো।

তখন মহিলারা ঘর থেকেই বাইরে মাড়াতো না,সামাজিক বিধি নিষেধের কারনে। এখন রাস্তাঘাটেই মায়ের জাত। কাউরে কোথাও জ্বিন পরীর কবলে হুশ হারাতে শুনা যায় না। জ্বিনপরীরাও কি তালে upgrade বনতে শক্তের ভক্ত নরমের যম বনে গেলো !

ছেলেবেলায় কেউ যদি কাউরে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখায়তো খবর আছে! বৃদ্ধাঙুল মানেই ছিল গোপন কারখানা বেদইপ্যা কথা । তুই আমারে কি করতে পারবি, এইটা করবি বলে এই বৃদ্ধাঙ্গুল প্রদর্শন করতো। সাথে সাথে প্রদর্শন কারীর উপর চটত মহাবেগে।

হতো প্রতিশোধ পরায়ন। অনেক সময় হাটবাজারে বড় দাঙাহাঙামা বাঁধতো এই এক আঙুলের কারনে। তোর বাপের গোষ্টী আমারে এইটা করবো বলে বৃদ্ধাঙুল প্রদর্শনে কত স্ত্রী রাগে ক্ষোভে অভিমাণে বাপের বাড়ি জানিয়ে লংকাকান্ড বাঁধিয়েছে তার কি ইয়াত্তা আছে!

অথচ আজ সে একই বৃদ্ধাঙুল না দেখালেই ভাবে Uncivilized , গোপন জায়গার বেয়াদইপ্যা ইন্ডিকেটরও আজ শুভেচ্ছা -স্বাগতমে, সভ্য মানুষের শিয়রে শিয়রে ….বদলানীর এমন জ্বালায়- না জ্বলে করি কি কওনতো !

লেখকঃ বিভাগীয় প্রধান ,সমাজবিজ্ঞান বিভাগ ,উখিয়া কলেজ কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •