জাতীয় দৈনিক কালের কণ্ঠ, কক্সবাজারের স্থানীয় দৈনিক আজকের দেশবিদেশ ও দৈনিক কক্সবাজার ৭১ পত্রিকায় ‘আলীশান বিয়ের আয়োজনে কোটি কোটি টাকার ইয়াবা পাচার’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টি আকর্ষণ হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। মূলতঃ আমার ৪ সন্তান ও ২ মেয়ে। আমার ছোট ছেলে সন্তান ছাড়া বাকি সবার বিয়ে হয় অনাড়ম্বর আয়োজনে। তাই পরিবারের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী আমার ছোট ছেলে নুরুল আমিন ভুট্টোর বিয়ের আয়োজন আনুষ্ঠানিকভাবে করা হয়। যার আলোকে গত শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) অন্য দশজনের মতো আমার ছোট ছেলে নুরুল আমিন ভুট্টোর বিয়ে সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদযাপিত হয়।
কিন্তু ওই সংবাদে বলা হয়েছে, অনুষ্টানটি নিয়ে গেইট থেকে ষ্টেইজ পর্যন্ত কেবল ডেকোরেশনের সাজ—সজ্জায় ব্যয় করা হয়েছে ৫/৬ লাখ টাকা। বিয়ে অনুষ্টানে রাতভর চলেছে গানের অনুষ্টান। সেই গানের অনুষ্টানে শিল্পীদের মাঝে ইয়াবা কারবারি ইকবালের পক্ষে ছিটানো হয়েছে ৫০০ ও এক হাজার টাকার অগণিত সংখ্যক নোট। বিয়ে বাড়ীর অনুষ্টানটিতে উপহার হিসাবে পাওয়া গেছে ১০ টি গরু, ২৪ টি ছাগল ও আনুষাঙ্গিক অন্যান্য জিনিস। বিয়ে বাড়ীর মাইক দিয়ে এলাকাার লোকজনকে খাবারের দাওয়াতও দেয়া হয়।
সংবাদটি পড়ে আমিসহ আমার পরিবার হতবাক হয়েছি। পরিতাপের বিষয় হলো সংবাদে রঙ মিশিয়ে পাঠক চাহিদার জন্য এমন জঘন্য মিথ্যাচার করা হয়েছে। বিয়েতে ২ হাজার মানুষের খাবারের জন্য মাত্র ১টি গরু ও ১টি মহিষ জবাই করা হয়। তারমধ্যে মহিষ দেন আমার ভাই অর্থাৎ ইকবালের চাচা। সাজসজ্জাও স্বাভাবিক। কোন রকম জমকালো ডেকোরেশন করা হয়নি। মাইক দিয়েও কাউকে ডাকা হয়নি। বিয়েতে ছোট্ট পরিসরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্থানীয় রাজনীতিক, জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য বক্তিবর্গসহ এলাকাবাসী অংশ নেন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ৫০০ ও ১ হাজার টাকার নোট ছিটাছিটির বিষয়টি সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর। তবে অনুষ্ঠানে শিল্পীদের গানে সন্তুষ্ট হয়ে আগত অতিথিরা ৫০—২০০ টাকা পর্যন্ত উপহার দিয়েছেন।
তাছাড়া সংবাদে আরও উল্লেখ করা হয়, অনুষ্টানটি জমকালোভাবে আয়োজনের নেপথ্যেও ছিল ইয়াবার বড় বড় চালান পাচার। আমার ৩য় পুত্র মোহাম্মদ ইকবালের বিরুদ্ধেই রয়েছে ইয়াবা কারবারের অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রকৃত অর্থে মাদকসহ সমাজের সকল অসঙ্গতির বিরুদ্ধে তাঁর অবস্থান প্রতিবাদমূখী। এ জন্য তার বিরুদ্ধে প্রকৃত অপরাধীরা একাধিক ষড়যন্ত্রমূলক মামলাও দায়ের করে। তারমধ্যে প্রায় মামলা খারিজ করে দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। বর্তমানে সে খুবই অসুস্থ। বিয়েতে সে ভাল করে শরীকও হতে পারেনি। কিন্তু সংবাদে তাকে নিয়ে অহেতুক অপ—প্রচার করা হয়েছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। তাই আমি মিথ্যা ওই সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে এ নিয়ে প্রশাসনসহ কাউকে বিভ্রান্তি না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
আলী আহমদ
সাবেক সভাপতি, ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ
করইবনিয়া, রত্নাপালং, উখিয়া, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •