মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

উখিয়ার কোটবাজারে রোহিঙ্গা যুবকের হাতে স্থানীয় যুবক খুন হওয়ার মতো নৃশংস ঘটনা আর দেখতে চাই না। স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সহযোগিতার রোহিঙ্গা শরনার্থীরা বাংলাদেশী জনগোষ্ঠীর সাথে মিশে যাওয়ার সুযোগ পেলে, রোহিঙ্গা শরনার্থীরা এক সময় স্থানীয়দের জন্য বড় ধরনে হুমকি হয়ে দাড়াবে। পাশাপাশি উখিয়া উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা প্রশাসনের জন্য তখন কঠিন হয়ে পড়বে।

বুধবার ২৭ জানুয়ারী সকালে উখিয়া উপজেলা পরিষদের হল রুমে অনুষ্ঠিত উখিয়া উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্য প্রদানকালে ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ একথা বলেন। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উখিয়া উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী।

ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের কোন প্রতিষ্ঠানে কর্মচারী হিসাবে নিয়োগ দিলে, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের বাসা ভাড়া দেওয়া হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও বাড়ির মালিকদের কঠোর আইনের আওতায় আনা হবে। কোটবাজার ও উখিয়া স্টেশনের যানজট নিরসনের প্রশাসন সম্ভব সব ধরনের আইনি পদক্ষেপ গ্রহন করবে বলে জানান তিনি। শিক্ষার্থীরা যাতে সড়ক দুর্ঘটনায় থেকে রক্ষা পায়, নিরাপদে বাড়ি হতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসা যাওয়া করতে পারে, সেজন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উখিয়া থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশকে ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ নির্দেশনা প্রদান করেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উখিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রঞ্জন বড়ুয়া রাজন, উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সনজুর মুর্শেদ, রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল আলম চৌধুরী, হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ আলম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার সুব্রত ধর, উখিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার, বিজিবি প্রতিনিধি ও বনবিভাগ প্রতিনিধি প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •