বলরাম দাশ অনুপম :
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের ৭৩৫ কেন্দ্র পাহারায় দায়িত্ব পালন করবেন ৮ হাজার পুলিশ সদস্য। এর মধ্যে ৪১০টি ভোটকেন্দ্রকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে নগর পুলিশ। পরিস্থিতি সামাল দিতে তাই আশপাশের জেলা থেকেও ৩ হাজার ৪০০ পুলিশ সদস্য আসছেন চসিক নির্বাচনে কাজ করতে। অন্যদিকে সিএমপির মোট জনবল থেকে ৫ হাজারের মত পুলিশ সদস্য পালন করবেন নির্বাচনী দায়িত্ব।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) নগর পুলিশের বিশেষ শাখার উপ কমিশনার আব্দুল ওয়ারিশ এসব তথ্য জানান।

চট্টগ্রাম নগর ও জেলার হাটহাজারী উপজেলা মিলিয়ে ৭৩৫টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। এর মধ্যে ৪১০টিকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনায় নিয়েছে পুলিশ।

উপ কমিশনার আব্দুল ওয়ারিশ বলেন, ‘অন্য কেন্দ্রগুলোতে ৪ জন করে অস্ত্রধারী পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করলেও ঝুকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত এসব কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবেন ৬ জন করে স্বশস্ত্র পুলিশ সদস্য। পাশাপাশি পুলিশের সাথে প্রতিকেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবেন ১২ জন করে আনসার সদস্য। কেন্দ্রের বাইরে টহল পুলিশ, সাদা পোশাকের পুলিশ ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা তৎপর থাকবে।’

এদিকে নির্বাচনী সহিংসতা মোকাবেলায় গত কয়েকদিন ধরে নিয়মিত বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে অভিযান পরিচালনা করে আসছে নগর পুলিশ। সোমবার (২৫ জানুয়ারি) থেকে নগরের ব্যাচেলর বাসাগুলোতেও অভিযান চালানো হতে পারে বলে জানিয়েছে সিএমপির নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র।

এবারের চসিক নির্বাচলের প্রচারণা পর্ব থেকে দফায় দফায় সংঘর্ষের উত্তাপ ছড়িয়েছে ভোটের মাঠে। আওয়ামী লীগের দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থী ও বিদ্রোহীদের দ্বন্দ্বে এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছে ২ জন আওয়ামী লীগ নেতা। নির্বাচনী পরিবেশ শান্ত রাখতে পুলিশ কঠোর ভূমিকায় থাকার কথা শুরু থেকে জানিয়ে আসছেন নগর পুলিশের কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •