মোঃ সাইদুজ্জামান সাঈদ,রামু : কলেজ ছাত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস কেমি মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।  সে গত  ২০ জানুয়ারি (বুধবার) বিকালে বাসটার্মিনাল সংলগ্ন এলাকা দিয়ে যাওয়ার পথে একদল মুখোশধারী সন্ত্রাসী তাকে ছুরিকাঘাত করলে রক্তাক্ত জখম হয়। কেমির  চিৎকারে মানুষজন জড়ো হলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় । পরে মূমুর্ষ অবস্থায় এক সিএনজি চালক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সে সদর হাসপাতালে এখনও চিকিৎসাধীন আছে।

জান্নাতুল ফেরদৌস কেমি কক্সবাজার সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের  ছাত্রী । রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া তুলাতলী গ্রামের ছৈয়দ হোসনের মেয়ে।  এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তাহীনতা ও আইনশৃংখলা পরিস্থিতির অবনতিতে সামাজিক  মাধ্যমে বেশ ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন শিক্ষার্থী ও ফেসবুক ব্যবহারকারীগণ।

এ বিষয়ে কেমির বাবা ছৈয়দ হোসেন জানান, আমার মেয়ে প্রাইভেট থেকে বাড়ি ফেরার পথে একদল মুখোশপড়া সন্ত্রাসী পথ আটকিয়ে মোবাইল ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। ব্যর্থ হলে চাকু দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে চলে যায়। এ ঘটনায় আমরা মেয়ের ও পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তায় আছি।  এ বিষয়ে তিনি থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান।

এদিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে  অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন কক্সবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •