সিবিএন ডেস্ক :

কক্সবাজারে উখিয়ায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থ্যা ব্র্যাক পরিচালিত স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে গৃহিত বিভিন্ন কর্মসূচি পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশস্থ কানাডার হাইকমিশনের প্রতিনিধিবৃন্দ। প্রতিনিধি দলে ছিলেন বাংলাদেশস্থ কানাডার হাইকমিশনের হেড অব ডেভলপমেন্ট এ্যাসিট্যান্স ফেদ্রা মুন মরিস, ফাস্ট সেক্রেটারি মেগেন আন্দোলফাটো, ডেভলপমেন্ট উপদেষ্টা মীর মো. সাইফুর রহমান। এই সময় ব্র্যাকের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সংস্থাটির হিউম্যানিট্যারিয়ান ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম (এইচসিএমপি)-এর পরিচালক সাজেদুল হাসান, আঞ্চলিক পরিচালক হাসিনা আখতার হক, (এইচসিএমপি)- এর কর্মসূচি প্রধান মোহাম্মদ নুরুল আলম রাজুসহ কর্মসূচি সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিবৃন্দ।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) জেলার উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের যাদিমুরাতে অবস্থিত আয়েশা আবেদ ফাউন্ডেশন এবং কোর্ট বাজার এলাকায় গ্যাক (এঅঈ)-এর অর্থায়নে পরিচালিত দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচির প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ স্থান এবং প্রশিক্ষণে উত্তীর্ণদের কর্মক্ষেত্র পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনের সময় প্রতিনিধিবৃন্দ আয়েশা আবেদ ফাউন্ডেশনে কিছু সময় অবস্থান করেন এবং ব্র্যাকের প্রতিনিধির সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এই সময় তাঁরা সেখানকার কর্মজীবী নারীদের সঙ্গে কথা বলেন এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে ব্র্যাকের গৃহীত কর্মসূচির প্রশংসা করেন। একই সঙ্গে তাঁরা এই ব্যাপারে তাদের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এরপর তারা কোর্ট বাজার এলাকায় ব্র্যাক কমিউনিটি টেইলার্স পরিদর্শন করেন এবং সেখানকার কর্মরত নারীদের কাছ থেকে ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানতে চান।

মতবিনিময়কালে ফেদ্রা মুন মরিস রোহিঙ্গা ও স্থানীয় জনগোষ্ঠীর মাঝে বাল্যবিবাহ নিরোধ ও শিশু সুরক্ষায় কাজ করার ক্ষেত্রে বাস্তবতার আলোকে কর্মসূচি নেয়ার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি বলেন, এই ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রভাববিস্তারকারী গ্রুপ ও কমিউনিটিকে সম্পৃক্ত করা জরুরী।

সাজেদুল হাসান বলেন, বাল্যবিবাহ নিরোধ ও শিশু সুরক্ষায় আমাদের পলিসি অ্যাডভোকেসি ও তৃণমূল পর্যায়ে আরও অ্যাডভোকেসি করতে হবে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ব্র্যাক এই ক্ষেত্রে যেসব চ্যালেঞ্জ আছে তা আগামী দিনে আরও ভালোভাবে মোকাবেলা করবে।

এ সম্পর্কে ব্র্যাকের হিউম্যানিট্যারিয়ান ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম (এইচসিএমপি)-এর আঞ্চলিক পরিচালক হাসিনা আখতার হক বলেন, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ব্র্যাক প্রান্তিক মানুষের জীবন মান উন্নয়নে কাজ

করে যাচ্ছে। সেই ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দাতা সংস্থা গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স কানাডা (এঅঈ)-এর সহযোগিতায় সম্প্রতি এই অঞ্চলে অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে স্বাস্থ্যসেবাসহ আয় বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ডের জন্য বিনামূল্যে গরু-ছাগল প্রদান, ক্ষুদ্র ব্যবসা, দক্ষতা উন্নযন প্রশিক্ষণ প্রদান, মুরগী পালন এবং বসত বাড়িতে প্রান্তিক কৃষকদের বিনামূল্যে সার, বীজ ও কৃষি উপকরণ সামগ্রী বিতরণ করে তাদেরকে স্বাবলম্বী করার উদ্যোগ নিয়েছে। দাতাদের সহযোগিতা পেলে ভবিষ্যতে এই উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

প্রসঙ্গত, ১লা এপিল ২০১৯ সাল থেকে দাতা সংস্থা গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স কানাডার সহযোগিতায় ব্র্যাক কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ১১,৫৮৫ অতিদরিদ্র পরিবারকে সহায়তা প্রদান করছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে ২০২৩ সালের ৩১শে মার্চ পর্যন্ত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •