প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে এগিয়ে চলা দেশের অন্যতম বিনোদন ও সংবাদ ভিত্তিক স্যাটেলাইট চ্যানেল এশিয়ান টিভি’র ৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী বর্ণাঢ্য আয়োজনে উৎযাপন হয়েছে।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সন্ধায় কক্সবাজার রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড-এ আয়োজিত কক্সবাজার প্রতিনিধি মোহাম্মদ শফিকের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন এর কক্সবাজার জেলা সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসাইন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে.কর্ণেল (অব) ফোরকান আহম্মদ। এসময় অমন্ত্রিত এশিয়ান পরিবারকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান এবং অনুষ্ঠান শেষে উৎসবমুখর পরিবেশে এশিয়ান টিভি’র ৮ম বর্ষপূর্তির কেক কাটেন উপস্থিত অতিথিরা। এর আগে অনুষ্ঠান শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন, মো: শাহাদত উল্লাহ।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লে. কর্ণেল (অব) ফোরকান আহম্মদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধের স্বপক্ষে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডে অত্যন্ত গুরুপূর্ণ ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে এ টিভি। এশিয়ান টেলিভিশন যে সঠিক ও বস্তু নিষ্ট এবং সাধারণ মানুষের উপকারে কথা বলে যাচ্ছেন এ ধারাবাহিকতা সামনেও বজায় থাকবে তা প্রত্যাশা করেন। এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান ও সকল কলাকুশলীদের উজ্জল ভবিষ্যত কামনা করেন। এসময় তিনি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কক্সবাজারে বিভিন্ন চলমান কর্মকান্ডের কথা তুলে ধরে একটু কষ্ট হলেও সবাইকে ভুল না বুঝে কক্সবাজারকে অত্যাধুনিক নগরী উপহার দিতে সবাইকে ধৈর্য ধারণ করার অনুরোধ জানান।

এসয় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের সাবেক সাংসদ অধ্যাপিকা এথিন রাখাইন বলেন, এশিয়ান টিভি’র বিনোদন, সংবাদ দর্শকদের মন জয় করেছে। বিশেষ করে এশিয়ান ওর্য়ালটন মিউজিক ও বর্তমানে পৃথিবীর ৫৩ টিরও বেশি দেশ কাঁপিয়ে বাংলায় ডাবিংকৃত টার্কিশ পারিবারিক ধারাবাহিক নাটক “আয়েশা মরিয়ম” এটি আরো বেশি দর্শক নন্দিত হয়েছে। আশা করি মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে সরকারের যে উন্নয়নযজ্ঞ চলছে তা ফলোআপ অব্যাহত রাখবে। এছাড়া বাংলার শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরবে।

এসয় কক্সবাজার প্রতিনিধি মোহাম্মদ শফিক তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে উপস্থিত সকল অতিথিদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, এশিয়ান টিভি সব সময় সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বদ্ধপরিকর। এ টিভি মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের টিভি। দেশের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিশ্বের দরবারে তুলে ধরেছে এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বন্ধনে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া সমাজের নানান অসঙ্গতি ও নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষের পক্ষে কথা বলে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও এ ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

এসয় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা চলাকালীন জয় বাংলা বাহিনীর ৭১ এর কক্সবাজার এর প্রধান বীর মুুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরী, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি র্বোডের সদস্য সচিব প্রফেসর এ.কে এম গিয়াস উদ্দিন, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ’৭১ জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড গিয়াস উদ্দিন, কক্সবাজার রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী, আরটিভির জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক সাইফুর রহিম শাহিন, দৈনিক কক্সবাজারবাণী সম্পাদক ও প্রকাশক সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা, প্রবীণ সাংবাদিক আমির হোসেন হেলালী, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী,

এসময় অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলা টিভি’র জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম আমিন, দৈনিক গণসংযোগ পত্রিকার সম্পাদক সাংবাদিক আমান উল্লাহ আমান, কক্সবাজার পরিকল্পিত আন্দোলন এর সমন্বয়ক সাংবাদিক আব্দুল আলীম নোবেল, মাইটিভির কক্সবাজার প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম, সাংবাদিক জাহেদুল ইসলাম, সাংবাদিক মাস্টার মো: আলম ও সাংবাদিক সাজ্জাদ হোসেন শুভ প্রমূখ।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এর সহ-সভাপতি সমীর পাল, প্রফেসর হাশেম উদ্দিন, প্রফেসর উজ্জল কান্তি দেব, প্রভাষক সুলতান মাহমুদ, প্রেফেসর আসাদুল ইসলাম, উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্য মাসুদুর রহমান বাবু, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এর রামু উপজেলার সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহিম, সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সভাপতি মুজিবুর রহমান, এশিয়ান টিভি’র ফটো সাংবাদিক এম কে, আজাদ, গণমাধ্যম কর্মী সালাউদ্দিন জামসেদ, তামজিদ কাইছার, হামিদ আলী, নয়ন উদ্দিন, কাউছার হামিদ, শাহাদত উল্লাহ, দিদারুল ইসলাম, হামিদুর রহমান, শিপন পাল, আব্দুর রহিম, শাহজান আলি, মুফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন স্কুল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার লোকজন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •