এম.এ আজিজ রাসেল :
নিবন্ধনের সংখ্যা বাড়ানো, অনলাইনে ভ্যাট রিটার্ন সাবমিট এবং ইএফডিকে জনপ্রিয় করতে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে শুরু হয়েছে দুই দিনের ভ্যাট মেলা। সোমবার (১১ জানুয়ারী) সকালে শহরের কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কার্যালয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট চট্টগ্রামের যুগ্ন কমিশনার মো. মুশফিকুর রহমান।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, নতুন ভ্যাট আইনের মাধ্যমে অনলাইনে রিটার্ন জমা নেওয়া শুরু হবে। এটা নিয়ে অনেকের মধ্যে ভীতি কাজ করছে। ভ্যাট মেলার মূল উদ্দেশ্য, রিটার্ন জমা নিয়ে কোনো ভীতিকর, বাজে অভিজ্ঞতা যাতে কারও না হয়। মেলার মাধ্যমে ভ্যাট রিটার্ন সাবমিট সহজতর হবে। সেখানে কর্মকর্তারা থাকবেন, তাৎক্ষণিক সমাধান পাবেন সংশ্লিষ্টরা। আমরা রিটার্ন দাখিলের হার বাড়ানোর পাশাপাশি করদাতাদের ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন যাতে আরও সহজবোধ্য হয় সেটি চাই। ব্যবসায়ীরা যাতে কোনো রকম হয়রানির শিকার না হন। এসব লক্ষ্যে আমরা মেলাটা শুরু করেছি। তাছাড়া রিটার্ন সাবমিশন অত্যন্ত জরুরি। আমরা ভ্যাট ব্যবস্থা কার্যকর করতে চাইলে নিবন্ধনের আওতা বাড়াতে হবে। রিটার্ন সাবমিশন নিশ্চিত করতে না পারলে ভ্যাট আদায় কাঙ্ক্ষিত পরিমাণে হবে না।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট কক্সবাজার ডিভিশনের বিভাগীয় কর্মকর্তা ডেপুটি কমিশনার সাইয়েদুল ইসলাম। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কক্সবাজার ডিভিশনে ১৩টি ইউএফডি মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। ভবিষ্যতে আরো ইউএফডি মেশিন স্থাপন করা হবে। আমরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করব। ভ্যাট অনলাইন ব্যবস্থা নতুন। কারও ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ডে সমস্যা থাকতে পারে। ড্রপ বক্সে সমস্যা হতে পারে। সেগুলো স্পষ্ট হবে মেলায়। একা হয়তো সমাধান করতে পারছে না। মেলায় ওয়ান স্টপ বুথে হাতে—কলমে শিখিয়ে দেয়া হবে, কীভাবে রিটার্ন সাবমিশন করতে হয়। এরপর তারা অফিস বা বাসায় বসে রিটার্ন সাবমিট করতে পারবেন। অনলাইনে ভ্যাট রিটার্ন সাবমিটে প্রাথমিক জড়তা, অস্বস্তি কাটাতে চাই, নির্ভুল করতে চাই আমরা। আমরা ভ্যাট কর্মকর্তাদেরও উদ্বুদ্ধ করতে চাই যাতে তারা জনবান্ধব ও ব্যবসাবান্ধব হন। ১—১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ভ্যাট নিবন্ধন চলছে। মেলার দুই দিন আমরা বেশি ফোকাস দিতে চাই।
বৈশ্বিক মহামারি করোনা প্রতিরোধে ভ্যাট মেলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক পরা ইত্যাদি কঠোরভাবে নজরদারি করা হবে। অনুষ্ঠানে কক্সবাজার কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কার্যালয়ের রাজস্ব কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন, আরও ৬ রাজস্ব কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ঠরা উপস্থিত ছিলেন। মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) পর্যন্ত কক্সবাজার কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কার্যালয়ে এ মেলা চলবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •