প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান বলেছেন, “বঙ্গবন্ধু সেদিন বীরের বেশে স্বদেশে ফিরে এসেছিলেন বলেই আজ উন্নত সুখি সমৃদ্ধ একটি সোনার বাংলাদেশ পেয়েছি। তিনি দেশে আসতে না পারলে হয়তো ইতিহাস অন্যরকম হতো। তাইতো জাতির পিতার দেশে ফিরে আসার অনুপ্রেরণাকে শক্তি হিসেবে ব্যবহার করে তাঁরই সুযোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ বীরত্বের সাথে এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, শেখ হাসিনার হাত ধরেই আগামী দিনে বিশ্বের রোল মডেলে রূপান্তর হবে লাল সবুজের এই বাংলাদেশ। তবে সে লক্ষে আওয়ামী লীগের সকল স্থরের নেতাকর্মীকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে।” ১০ জানুয়ারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপিকা এথিন রাখাইনের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রনজিত দাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় মেয়র মুজিব আরো বলেন, “ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি মহান মুক্তিযুদ্ধের ধারাবাহিক ইতিহাসের একটি অনন্য মাইলফলক। ১৯৪৭ সালে ভ্রান্ত দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে দেশভাগের মধ্যদিয়ে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী পূর্ব বাংলার মানুষকে নতুন করে পরাধীনতার নিকষ অন্ধকারে নিপতিত করে। ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবিসংবাদিত নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পথপরিক্রমায় পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তোলে বাঙালি জাতি। বাঙালি জাতিকে মুক্তির মহামন্ত্রে উজ্জীবিত করে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের পথে এগিয়ে নিয়ে যান শেখ মুজিবুর রহমান।

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথে বাঙালি জাতি দখলদার পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জন করে। বিশ্ব-মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের।”

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ, সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, মাহবুবুল হক মুকুল, নুরুল আবছার, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, এডভোকেট তাপস রক্ষিত, ইউনুস বাঙ্গালী, আবু হেনা মোস্তফা কামাল, কাজী মোস্তাক আহমেদ শামীম, এটিএম জিয়াউদ্দিন, এডভোকেট সুলতানুল আলম, জিএম কাশেম, সোনা আলী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর, জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও সভায় জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা যুবলীগ, জেলা ছাত্রলীগ, জেলা শ্রমিক লীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটের গুরুত্বপূর্ণ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে রোববার সকাল ৬টায় জাতীয় এবং দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ১০টায় শহরের লালদিঘীর পাড়স্থ দলীয় কার্যালয়ে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •