সংবাদদাতা:
কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের পিএম খালী রেঞ্জ আওতাধীন খুরুশকুল বিট কর্মকর্তা আতিকুল হক চৌধুরীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে বন মামলার আসামীরা। সরকারি কাজে বাধা প্রদানসহ প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে তাকে গাড়িচাপা দিয়ে প্রানে হত্যা করতে।
এ সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি গত ৭ জানুয়ারী ২০২১ ইং তারিখে সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে অবগত করা হয়েছে এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনা সম্পর্কে বিট কর্মকর্তা আতিকুল হক চৌধুরী জানান, সরকারি বনভূমি ধ্বংস করার অন্যায় আবদার নিয়ে আসছিল স্থানীয় একটি চক্র। নানান লোভনীয় প্রস্তাবেও রাজি না হওয়ায় তারা মুঠোফোনে প্রাণনাশের হুমকি ও গাড়িচাপা দিয়ে চিরতরে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে।
কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এনিয়ে দায়েরকৃত অভিযোগে জানা গেছে, গত ৫ জানুয়ারি বিকেল ৩ টা ৫৫ মিনিটে ০১৮৭২০৩১৪৯৫ মোবাইল নাম্বার থেকে বিট কর্মকর্তা আতিকুল হকের মোবাইলে একটি ফোনকল আসে। এটি রিসিভ করলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে দেয় ও একপর্যায়ে চিরতরে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় এই বনবিট কর্মকর্তাকে। এসময় তিনি ২ মিনিট ৪০ সেকেন্ড সময়ের একটি ভয়েসকল রেকর্ড করেন। পরে নিশ্চিত হন ওই হুমকিদাতা খুরুশকুলের তেতৈয়া সওদাগর পাড়া এলাকার পিওআর মামলার আসামি মাদক সংশ্লিষ্ট মোঃ ফাহিম।

অপরদিকে একই চক্রের হুতা চৌফলদন্ডী ঘোনাপড়া এলাকার বাসিন্দা ও বর্তমানে ফাহিমের এলাবাসী রনি ড্রাইভার বিট কর্মকর্তা আতিকুলকে প্রতিনিয়ত প্রাণে হত্যার চেষ্টা চালাচ্ছে। এমনকি সে একাধিকবার গাড়িচাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালালেও কৌশলে প্রাণে বাঁচে বিট কর্মকর্তা। এছাড়াও তিন মামলার আসামি এই রনি ড্রাইভার বিভিন্ন সময় তাকে সরকারি কাজে বাঁধা সৃষ্টি করছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করেন। অভিযোগের অনুলিপি কক্সবাজার সহকারী বন সংরক্ষক, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ও র‍্যাব-১৫ এর নিকট প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক আমজাদুর রহমান জানান, সরকারি কর্তব্য কাজে বাধা সম্মুখীন করা অত্যন্ত দুঃখজনক। এমনই ঘটনাসহ খুরুশকুল বনবিট কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে হুমকি ও হত্যার চেষ্টা সংক্রান্ত একটি অভিযোগের তদন্তভার পাওয়া গেছে। এটি আদালতের মাধ্যমে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •