ইমাম খাইর, সিবিএন :
কক্সবাজার সদরের ইসলামপুরের ৪ নং ওয়ার্ডের মধ্যম নাপিতখালি একটি অজপাড়া গাঁয়ের নাম। যেখানে তেমন উচ্চশিক্ষিত পরিবার বলতে নেই। সবগুলোই সাধারণ পরিবার বললেই চলে। যে কারণে ওই এলাকার শিক্ষারহার খুব নগণ্য।
লবণ মাঠ, হালচাষ কিংবা কৃষিকাজ করে মধ্যম নাপিতখালি এলাকার বাসিন্দারা জীবন জীবিকা নির্বাহ করে।
তেমন পিছিয়ে থাকা জনপদকে আলোকিত করে তুলছে একটি পরিবার।
পরিবারের প্রধান ব্যক্তি আলহাজ্ব নজির আহমদ ২০১৭ সালে মারা যান। সংসারের তাগিদে নিজে জীবনসংগ্রাম করে রেখে যান কিছু অমূল্য সম্পদ ছেলে সন্তান। যারা আজ দেশ-বিদেশে আলোকিত মানুষ হিসেবে পরিচিত। সেই ছোট্ট কৃষক পরিবারে এখন ২ জন বিসিএস ক্যাডার।
একজন ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির, যিনি কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সংক্রামক রোগ ও ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক।
অপরজন ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজিরের ভাতিজা ওমর ফারুক, যিনি ২৮ তম বিসিএসের গর্বিত ক্যাডার। বর্তমানে তিনি পার্বত্য জেলা বান্দরবানে কৃষি কর্মকর্তার দায়িত্বে আছেন।
সবচেয়ে বড় কথা হলো- কৃষি কর্মকর্তা ওমর ফারুকের ছোট ভাই শাহরিয়ার পারভেজ (রুবেল) এখন নতুন দিগন্তে হাঁটছেন।
তিনি PhD (University of central Florida, USA.) এর জন্য মনোনীত হয়ে গত ৫ জানুয়ারী আমেরিকার উদ্দেশ্য দেশ ত্যাগ করেন। তাঁর পিএইচডি এর ট্রপিক “ট্রান্সপোর্টেসন ইঞ্জিনিয়ারিং “।
ইতোমধ্যে তিনি বুয়েটের সহকারী অধ্যাপক (এআরআই) হিসেবে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছেন।
শাহরিয়ার পারভেজ (রুবেল) ২০০৬ সালে নাপিতখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি (বিজ্ঞান)-তে জিপিএ-৫সহ উত্তীর্ণ হন।
২০০৮ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি (বিজ্ঞান)-তে জিপিএ-৫সহ পাশ করেন।
বুয়েট থেকে ২০১৪ সালে বিএসসি এবং ২০১৯ সালে এমএসসিতে (সিভিল) রেকর্ড সংখ্যক নাম্বার নিয়ে পাশ করেন। পরে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পান।
শাহরিয়ার পারভেজ (রুবেল)এর ছোট ভাই এহসানুল কায়েস চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি (অনার্স) পাশ করে বাংলাদেশ জুডিশিয়ারি সার্ভিসে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন।
ছোট কাল থেকেই রুবেলের একমাত্র গাইড হিসেবে ভূমিকা রেখে আসছেন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সংক্রামক রোগ ও ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তার ছোট চাচু ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির।
ধারাবাহিক এই সফলতার জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার নিকট শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন পিতা মনজুর আলাম ও মাতা মাজেদা বেগম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •