সংবাদদাতাঃ
কক্সবাজার সদরের পোকখালীর পূর্ব গোমাতালিতে দখলবাজ ও ভূমিদস্যুদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন তহসীল আহমদ (৬০)নামে অসহায় বৃদ্ধের পরিবার। ছেলে শহিদুল ইসলাম সুমনকে অবৈধ অস্ত্র, ইয়াবা দিয়ে ফাসানো হবে বলেও হুমকি দিচ্ছে চিহ্নিত চক্রটি।

এ বিষয়ে ৭ জানুয়ারি কক্সবাজার সদর মডেল থানায় জিডি করেছেন সুমন। যার নং-৪১৯।

এতে যাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে তারা হলেন- একই এলাকার মৃত আছদ আলী সিকদারের ছেলে শাহে এমরান, মৃত মোজাহের আহমদের ছেলে জাফর আলম, জাফর আলমের ছেলে শাহজাহান ভুট্টু, মৃত আবদুল আজিজের ছেলে আবুইল্যা ও শাহজাহান ভুট্টুর স্ত্রী রুমানা আক্তার। তাদের নেপথ্যে আছে আরো কয়েকজন।

শহিদুল ইসলাম সুমন জিডিতে উল্লেখ করেন, মায়ের পৈত্রিক সুত্রে প্রাপ্ত জমিতে প্রায় ৪০ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। ইতোমধ্যে তাদের দীর্ঘদিনের বসতিপূর্ণ জমিতে লোলুপ দৃষ্টি পড়ে একটি চিহ্নিত ভূমিদস্যুচক্রের। চক্রটি নানামুখী পাঁয়তারা চালানোর পাশাপাশি হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে।

তার অভিযোগ, গত ৬ জানুয়ারি বিকেল চারটার দিকে বসতবাড়ির সামনে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয় দখলবাজ ও সন্ত্রাসীচক্র।

শহিদুল ইসলাম সুমন তার জিডিতে আরও জানিয়েছেন, চিহ্নিত ভূমিদস্যুচক্র তাকেসহ তার পরিবারকে ইয়াবা ও অবৈধ অস্ত্র দিয়ে ফাসাবে, মিথ্যা মামলায় জড়াবে, ইয়াবা ব্যবসায়ী বানিয়ে পত্রিকায় সংবাদের মাধ্যমে সম্মানহানি করবে ইত্যাদি মর্মে নানাভাবে হুমকি প্রদান করে আসছে। এমতাবস্থায় সম্মান ও জীবন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে অসহায় বৃদ্ধের পরিবারটি। তারা জরুরি ভিত্তিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ জানুয়ারী দিনগত রাত সোয়া ১১ টার দিকে বৃদ্ধের বসতবাড়িতে হামলা, ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে ৯৯৯-এ ফোন করলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে সদর থানা পুলিশ। ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের কবল থেকে উদ্ধার করে আহত বৃদ্ধসহ পরিবারের সদস্যদের।

এ ঘটনায় বৃদ্ধ তহসীল আহমদের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদি হয়ে ৬ জানুয়ারী কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা করেন। যার থানা মামলা নং-১০। এতে ৪ জনসহ অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয় আরো ১০ জন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •