এম.মনছুর আলম, চকরিয়া:
চকরিয়ায় বসতঘর পুড়ানো মামলার স্বাক্ষী দেয়ায় মা আয়েশা বেগম (৭৫)কে কুপিয়েছে দুই ছেলে। তাকে আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৭জানুয়ারী) সকাল ১০টার দিকে উপজেলা ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডস্থ নয়াপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আহত বৃদ্ধা আয়েশা বেগম ওই এলাকার মৃত মাস্টার সিরাজুল হকের স্ত্রী।
আহত বৃদ্ধা নারী আয়েশা বেগম অভিযোগে জানান, আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর তার নামীয় স্থাবর ও অস্থাবর সকল সম্পত্তির আয় থেকে পরিবারের ভরণপোষণসহ যাবতীয় ব্যয় করে আসছি। স্বামী মারা যাওয়ায় তার রেখে যাওয়া সম্পত্তি আমি ও ছেলেরা দেখাশুনা করি। গত বছর জমির ভাগ না দেয়ায় ছোট ছেলে মাস্টার সাইফুল হকের বসতঘরে থাকাকালে আমাকে পুড়িয়ে মারতে ঘরে আগুন লাগিয়ে দেন ছেলে রিদুয়ানুল হক ও দিদারুল হক। এ নিয়ে থানায় মামলা করা হয়। ওই মামলায় তদন্ত কর্মকর্তার কাছে স্বাক্ষী দেয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে আমার ঘরে ঢুকে ধারালো দা দিয়ে মাথায় কুপিয়ে ও মারধর করে জখম করেন তারা। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে আমাকে উদ্ধার করে।
তিনি আরও বলেন, আমার বড় ছেলে এলাকায় একজন সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত, অপর ছেলে দিদারুল হক হেলথ ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত।জমির ভাগ না দেয়ায় ও বসতঘর পুড়ানো মামলায় স্বাক্ষী দেয়ায় আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে তারা সন্ত্রাসী হামলা চালায়। এবিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, বৃদ্ধ মহিলাকে আহত করার বিষয়ে এখনো থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •