অনলাইন ডেস্ক : বাইডেনের জয় অনুমোদনের অধিবেশনকে কেন্দ্র করে পার্লামেন্ট ভবনে যে ভয়াবহ হামলার ঘটনা ঘটে গেল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, তা নিয়ে বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় বইছে। এ ঘটনায় মার্কিনীরা তো বটেই, হতভম্ব হয়ে পড়েছে গোটা পৃথিবী। যুক্তরাষ্ট্রের মতো সুসংহত গণতন্ত্রের দেশে এমনটা ঘটতে পারে, তা হয়তো কেউ কল্পনাও করতে পারেনি। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, এটা বিক্ষোভ নয়, বিদ্রোহ।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জয়কে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন দিতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী স্থানীয় বুধবার (৬ ডিসেম্বর) অধিবেশনে বসেন আইন প্রণেতারা। ওয়াশিংটনের পার্লামেন্ট ভবনে এ নিয়ে যখন তর্ক-বিতর্ক চলছে, তখন হঠাৎ করেই শত শত ট্রাম্প সমর্থক ভেতরে ঢুকে পড়ে এবং নজিরবিহীন তাণ্ডব চালায়। পার্লামেন্ট ভবনে তারা ব্যাপক ভাঙচুর করে।

এ সময় পুলিশের সঙ্গে ট্রাম্প সমর্থকদের গুলি বিনিময় হয়। তাতে গুলিবিদ্ধ হন এক নারী, হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে আরো অনেকে আহত হয়েছেন। এক পর্যায়ে পার্লামেন্ট ভবনের নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয় পুলিশ। আটক করা হয়েছে ২০ হামলাকারীকে। এরপর পুনরায় শুরু হয়েছে অধিবেশন।

এই ‘নজিরবিহীন’ ঘটনার কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বাইডেন। তিনি বলেন, আমেরিকার গণতন্ত্র আজ হুমকির মুখে, যা আমাদের কাছে সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত। বিক্ষোভ প্রদর্শনের স্বাধীনতা সবার আছে কিন্তু এটা বিক্ষোভ হতে পারে না বরং এটা সুস্পষ্ট বিদ্রোহ। একই সঙ্গে আমেরিকার গণতন্ত্রের ওপর আক্রমণ। এই অচলাবস্থার অবসানের জন্য ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •