সিবিএন ডেস্ক:
উত্তেজনা ছড়ানোর আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্টটি ১২ ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির কর্তৃপক্ষ। টুইটার কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে বুধবার সন্ধ্যায় (বাংলাদেশ সময় ভোরে) এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়, ট্রাম্প টুইটারের নিয়ম কানুন ভঙ্গ করেছেন এটা প্রতীয়মান হওয়ায় পরবর্তী ১২ ঘণ্টার জন্য তার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেওয়া হলো। এসময় তাকে সতর্ক করে বলা হয়, প্রথমবার এ ঘটনা ঘটায় তাকে সতর্ক করা হচ্ছে। এর অন্যথা হলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের করা ‘@রিয়েলডোনাল্ড ট্রাম্প’ অ্যাকাউন্টটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

টুইটারের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় ‘@রিয়েলডোনাল্ড ট্রাম্প’অ্যাকাউন্ট থেকে আজ (বুধবার) করা পর পর তিনটি টুইট সামাজিকভাবে প্রবর্তিত নীতিমালা ভঙ্গ করেছে। এর অর্থ হচ্ছে এই অ্যাকাউন্টটি ১২ ঘণ্টার জন্য বন্ধ থাকবে ও ওই টুইটগুলো অপসারণ করতে হবে। যদি অপসারণ না করা হয় তাহলে অ্যাকাউন্টটি স্থায়ী ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে থাকেন এবং তার নির্বাচনি প্রচারণাসহ রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনকালে নিজস্ব অভিমত ও অনুভূতি এবং ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত বা মনোভাবগুলো টুইট করে অনুসরণকারীদের জানিয়ে থাকেন। তবে ইলেকটোরাল কলেজের নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর পপুলার ভোট গণনার দাবি জানিয়ে আসছিলেন তিনি। বুধবার (৬ জানুয়ারি বিকালে) কংগ্রেসের বৈঠকে ইলেকটোরাল ভোট গণনার সময় ট্রাম্পের আহ্বানে তার সমর্থকরা ওয়াশিংটনের ক্যাপিটল ভবনের সামনে প্রথমে বিক্ষোভ ও পরে হামলা চালায়। এ ঘটনার আগে-পরে টুইটারে টুইট করে ও পরে ভিডিও বক্তব্য দিয়ে সমর্থকদের শান্ত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তবে সেখানে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে তার দেওয়া বক্তব্যে সমাজের জন্য ক্ষতিকর শব্দ খুঁজে পেয়েছে টুইটার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •