এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও:
কক্সবাজার সদরের বৃহত্তর ঈদগাঁওর চৌফলদন্ডী-পোকখালী ও ইসলামপুরে চলতি মৌসুমে লবন চাষাবাদে মাঠে নেমেছে চাষিরা। শুরু হল লবণ মাঠ পরিচর্যা। কিছু চাষি একটু আগেভাগে মাঠে নামায় লবণ উৎপাদন শুরু করেছে। তবে, লবণের দাম নিয়ে শংকা রয়ে গেছে।

সূত্র মতে, দেশের এক তৃতীয়াংশ লবণের চাহিদা পুরণ করে কক্সবাজারের উৎপাদিত লবণ। তবে এবার লবণের মূল্য কম থাকায় চাষীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।

৭ জানুয়ারী সকালে চৌফলদন্ডীর উত্তর পাড়া এলাকায় লবনের মাঠে কাজে নিয়োজিত সোহেল জানান, এবার তিনি পাঁচ কানি জমিতে লাগিয়ত হিসেবে লবন চাষাবাদ করে যাচ্ছে। তিনি আড়ি বাধা, সমান করার কাজ শেষ করে এখন পলিথিন বিছানোর জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনছেন। অন্যদিকে শাহাদাত ও সিরাজ তারা দুইজনসহ অসংখ্য লোকজন মাঠে লবন উৎপাদনের লক্ষে ব্যস্তমুখর সময় ব্যয় করে যাচ্ছেন। ৫/৬ ধাপ পেরিয়ে অতিকষ্টের বিনিময়ে লবন উৎপন্ন করতে প্রস্তুতির শেষ নেই তাদের।

চৌফলদন্ডীর মনজুর আলমসহ কজন লবন চাষী জানান, শতকরা ৪০ ভাগ লোকজন লবন চাষাবাদে মাঠে নেমেছে। তবে বর্তমানে মাঠ পর্যায়ে লবনের দাম কম হওয়ায় হতাশ চাষীরা। দাম সন্তোষজনক না থাকায় চাষীদের মাঝে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

পোকখালী গোমাতলীর অহিদুর রহমান ইত্তেহাদ জানান, গোমাতলীতে শতকরা ২৫ ভাগ মানুষ লবন চাষাবাদে নেমেছে মাঠে। তবে দাম এবার রেকর্ড পরিমান কম বলেও উল্লেখ করেন।

কেন্দ্রীয় লবন মিল মালিক সমিতির সহ সভাপতি ফরিদুল ইসলাম খাঁন জানান, লবনের দাম কম থাকায় অর্ধেক চাষী এখনো মাঠে নামেনি। তারা চরমভাবে হতাশায় ভোগছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •