চকরিয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়ায় মাদক ফেন্সিডিলের রমরমা কারবার এবং এই মাদক ব্যবসায় কারা জড়িত রয়েছে তা অনুসন্ধানে নামার খবরে অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে জাতীয় দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ এবং দৈনিক মেহেদী পত্রিকার চকরিয়া প্রতিনিধি ও চকরিয়া প্রেস কাবের প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক মো. নাজমুল সাঈদ সোহেলের ওপর।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত বারোটার দিকে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিঙ্গা জনতা মার্কেট এলাকায় এই অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয় মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের পক্ষ থেকে। ঘটনার পর পরই খবর পেয়ে স্থানীয় পৌরকাউন্সিলর রেজাউল করিম স্থানীয় জনতার সহায়তায় আহত সাংবাদিক নাজমুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। হামলায় তার মুখমন্ডল ও বাঁম চোখে গুরুতর জখম হয়। এ কারণে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত চোখের উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

আহত সাংবাদিক নাজমুল অভিযোগ করেছেন, ধর্মীয় ও সরকার দলীয় রাজনৈতিক সংগঠনের বড় নেতার পরিচয়ের আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে চকরিয়ায় ফেন্সিডিলের কারবার করে আসছেন কয়েকজনের একটি মাদক সিন্ডিকেট। অফিসের নির্দেশনা মোতাবেক ফেন্সিডিলের সেই মাদক কারবারি সিন্ডিকেট নিয়ে অনুসন্ধান এবং সম্প্রতি চকরিয়া কলেজ সংলগ্ন আলভী গ্রুপের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ব্যবহৃত গাড়ির দামী ব্যাটারী চুরি যাওয়া নিয়ে নাম উল্লেখ না করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দেওয়ায় ক্ষুদ্ধ হয় মাদক কারবারি সিন্ডিকেট। এ কারণে মঙ্গলবার পেশাগত কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে পৌরশহরের চিরিঙ্গা জনতা মার্কেট এলাকায় অতর্কিত ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় তার ওপর। এতে তার মুখে রক্তাক্ত জখম এবং বাঁম চোখে মারাত্মক জখম হয়।

আহত সাংবাদিক নাজমুল জানান, তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হামলার সময় কয়েকজনকে তিনি চিনতে পেরেছেন এবং এই হামলার ঘটনায় থানায় লিখিত এজাহার দেওয়া হবে।

এদিকে চকরিয়া প্রেস কাবের প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক নাজমুলের ওপর মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের সশস্ত্র হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে প্রেস কাবের পক্ষ থেকে। অবিলম্বে হামলার ঘটনায় যত বড় প্রভাবশালী নেতা বা মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের সদস্য জড়িত থাকুক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করে দ্রুতসময়ে গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়েছে। কাবের সভাপতি ও দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি এম আর মাহমুদ এবং সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তর প্রতিনিধি জহিরুল ইসলাম কাবের পক্ষ থেকে এই দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •