ডিসি কামাল হোসেনকে কক্সবাজার পৌরসভার নাগরিকত্ব দেওয়া হবে : মেয়র

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

যখন যেখানেই থাকি, কক্সবাজারের একজন হয়ে থাকবো। যেখানেই যাবো কক্সবাজারের একজন হয়ে সাধ্যমত কাজ করে যাবো ইনশাআল্লাহ। আমার হৃদয়ে কক্সবাজারের জন্য যে স্থান তৈরি হয়েছে তা কখনো মুছার নয়। আজীবন কক্সবাজারের মানুষ হিসাবে থাকতেই প্রাণান্তকর চেষ্টা করবো। বিগত ৩৩ মাস কক্সবাজারে জেলা প্রশাসক হিসাবে দায়িত্ব পালনকালে চেষ্টা করেছি, কোন কিছুর একক উন্নয়নের চেয়ে সামগ্রিক উন্নয়নে মনোযোগ দেওয়ার। সবার জন্য মঙ্গলজনক হয়, এমন কাজকেই বেশি প্রাধান্য দেওয়ার। এই পথচলায় কক্সবাজারের জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্ধ, সাংবাদিক, পেশাজীবী, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া, শিক্ষা, শ্রমজীবী, সাধারণ মানুষ সহ সর্বস্থরের মানুষের যে অকৃত্রিম সহযোগিতা পেয়েছি তা কখনো ভুলবোনা। সবার আন্তরিক সহযোগিতা ছিল বলেই গত ৩৩ মাসে বিভিন্ন কঠিন ও নাজুক পরিস্থিতি সফলতার সাথে পার হতে পেরেছি।

কক্সবাজার নাগরিক সমাজের দেওয়া বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের বিদায়ী জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সরকারের যে সব মেঘাপ্রকল্প এখন কক্সবাজারে বাস্তবায়নাধীন রয়েছে, সেগুলোর কাজ শেষ হলে আগামীদিনে কক্সবাজার বাংলাদেশ তথা বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে। তাই বর্তমান সরকারের প্রতি আস্থাশীল থেকে প্রতিটি প্রকল্পের কাজ শেষ করতে সহযোগিতার জন্য তিনি কক্সবাজারবাসীর আহবান জানান।
শনিবার ২ জানুয়ারী বিকালে কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত বিদায় সংবর্ধনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার-২ (মহেশখালী- কুতুবদিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক ও আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা।

কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি জাহেদ সরওয়ার সোহেল’র নান্দনিক সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সিভিল সার্জন ডা: মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক (উপসচিব) শ্রাবস্তি রায়, বিদায়ী অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা, কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোঃ রফিকুল ইসলাম, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আবছার, কক্সবাজার প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও কক্সবাজার হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি এডভোকেট দীপংকর বড়ুয়া পিন্টু, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স ইন্ড্রাষ্ট্রীর সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী খোকা, এপিপি এডভোকেট তাপস রক্ষিত, জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি এডভোকেট রনজিত দাশ, দৈনিক কালেরকন্ঠের স্টাফ রিপোর্টার তোফায়েল আহমেদ, ককক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-৩ শাহেনা আক্তার পাখি, কালেক্টরেট সহকারী সমিতির সভাপতি স্বপন কান্তি পাল, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীর লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ পাল বিশু প্রমুখ

বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য অরুণোদয় স্কুল, কক্সবাজার ডিসি কলেজ, কক্সবাজার শিশু হাসপাতাল ও কক্সবাজার শিশুপার্কসহ জেলার আরো অনেক কল্যানকর প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা এবং করোনাকালে জেলার স্বাস্থ্য খাত উন্নয়ন, করোনাকালীন কর্মহারানো মানুষের পাশে দাঁড়াতে যার উল্লেখযোগ্য ভূমিকা ছিল সেই কক্সবাজারের মানবিক জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো: কামাল হোসেনকে বিদায় সংবর্ধনা জানাতে প্রায় সকল বক্তা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন।

সভাপতির বক্তব্যে পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বিদায়ী জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনকে কক্সবাজার পৌরসভার নাগরিকত্ব প্রদানের ঘোষনা দেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •