মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া:
সরকারি প্রতিষ্ঠানে ইয়াবা ব্যবসা ও ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল নিয়ে কুতুবদিয়া  দ্বীপজুড়ে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। দ্বীপের প্রত্যন্ত অঞ্চল তাবলেরচর গ্রামের বন বিভাগের বিট কার্যালয়ে প্রকাশ্যে ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল নিয়ে টক অপ দ্যা কুতুবদিয়ায় রূপ নেয়।
কৈয়ারবিল ইউপির ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য নজরুল ইসলাম টিটু ও বন প্রহরী আতিকুর রহমান স্থানীয় কয়েকজন বখাটে যুবক মিলে ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল নিয়ে এলাকায় মিশ্রপ্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
জানা যায়, উপকূলীয় বন বিভাগের নিয়ন্ত্রনাধীন কুতুবদিয়া উপজেলা রেঞ্জের অধিন তাবলেরচর বনবিট কার্যালয় প্রকাশ্যে ইয়াবা সেবনের ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হলেও বন বিভাগের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে উঠেছে জনমনে।
 স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, তাবলেরচর বন বিট অফিসের বন প্রহরী আতিকুর রহমান দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে এলাকায় ইয়াবা ব্যবসার পাশাপাশি ইয়াবা সেবন ও নারী কেলেঙ্কারী ঘটনায় জড়িয়ে পড়ে। এলাকার লোকজন বাধা দিলে বন মামলায় আসামী করার হুমকি দেওয়ায় এলাকার লোকজন নীরব ভূমিকা পালন করে।
এ বিষয়ে কুতুবদিয়া উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও আলী আকবর ডেইল ইউপির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুচ্ছাফা বিকম বিগত তিন মাস পূর্ব থেকে উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় উপস্থাপন করে গেলেও কর্তৃপক্ষ তা কর্ণপাত করেনি বলে তিনি অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বার মাহামুদুল করিম মনু বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বন প্রহরী আতিকুর রহমান ইয়াবা ব্যবসা ও স্বয়ং অফিসে মাদকের আসর বসিয়ে ইয়াবা সেবন করে যুব সমাজ ধ্বংস করে যাচ্ছে। প্রতিবাদ করলে বন মামলা আসামী করার হুমকি দেয়।
স্থানীয় রুহুল কাদের বলেন, তাবলেরচর বনবিট অফিসের অধিনে ঝাউবাগান,বাইন গাছ প্রতিনিয়তই প্রকাশ্যে জ্বালানীর কাজে কাঠ হিসেবে বিক্রি করে এবং বিট অফিসের জায়গা লিজ দিয়ে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে ঐ টাকায় ইয়াবা ব্যবসা ও সেবন করে যাচ্ছে। বিট অফিসের এরিয়ায় বিভিন্ন বিধবা ও সুন্দরী নারীদেরকে শীতকালীন শাকসবজির চাষ করার সুযোগ দিয়ে যৌন কেলেঙ্কারী ঘটনায় জড়িয়ে পড়েছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।
এ ব্যাপারে কুতুবদিয়া উপকূলীয় বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বন প্রহরী আতিকুর রহমান কর্মস্থলে ইয়াবা কারবার ও ইয়াবা সেবনের বিষয়ে শুনেছেন। তার বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে তিনি জানান।
এদিকে বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে তাবলরচর বন বিভাগের বিট অফিসে গেলে অভিযুক্ত বন প্রহরী আতিকুর রহমানকে কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি। অফিস তালাবদ্ধ ছিল। ঘটনার ব্যাপারে জানার জন্য বন প্রহরী আতিকুর রহমানকে মুঠোফোনে কল করলে সংযোগ পাওয়া যায়নি। তাই তার বক্তব্য দেয়া সম্ভব হয়নি।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •