নুরুল কবির, বান্দরবান :

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার বিনা খরচে ভুমিহীনদের বাড়ী তৈরী করে দেয়ার কথা থাকলেও বান্দরবানের দুর্গম থানচি উপজেলায় বাড়ী তৈরীর জন্য ভূমিহীনদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে বাড়তি টাকা। সরকারী বরাদ্দের টাকায় বাড়ী নির্মান সম্ভব হচ্ছে না বলে এ টাকা নেয়া হচ্ছে বলে জানান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআও)।

জানা গেছে দেশব্যাপী আশ্রয়ন প্রকল্প ২ এর আওতায় গৃহহীনদের জন্য দুটি শয়ন কক্ষ রান্না ঘর টয়লেট পরিবহন খরচসহ আধাপাকা বাড়ী নির্মানের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত টাকা দিয়ে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার হিসেবে ভূমিহীন গৃহহীনদের বিনা খরচে বাড়ী তৈরী করে দেয়ার কথা থাকলেও বান্দরবানের থানচি উপজেলায় ভূমিহীন গৃহহীনদের কাছ থেকে বাড়ী নির্মানে অতিরিক্ত ৩৬ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে। সমতল এলাকায় বরাদ্দকৃত টাকায় ভূমিহীনদের গৃহনির্মান হলেও থানচিতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গৃহনির্মানে ভূমিহীনদের কাছ থেকে টাকা নেয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা। বলিপাড়া ইউনিয়নের ভূমিহীন বাসিন্দা মংওয়াংশৈ মার্মা, চনু মং মার্মা, অংচিংনু মার্মা বলেন আমাদের নিজের জমি নেই ঘরও নেই প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা গৃহহীনদের বিনা খরচে ঘর তৈরী করে দিচ্ছেন শুনে আমরা খুব খুশি হয়েছি আমাদের মাথা গোজার একটা ঠাঁই হবে। কিন্তু ঘর তৈরী করে দিতে আমাদের কাছ থেকে ৩৬ হাজার টাকা করে নেয়া হচ্ছে। আমাদের অবস্থা এত খারাপ যে এ ৩৬ হাজার টাকা দিতে আমাদের খুব কষ্ট হচ্ছে। অর্ধেক টাকা দিয়েছি বাকী অর্ধেক আস্তে আস্তে দিব বলেছি।

তবে এ বিষয়ে থানচি উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন সরকারের পক্ষ থেকে বরাদ্দকৃত ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা দিয়ে দূর্গম থানচিতে ঘর তৈরী করা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা ইস্টিমেট করে দেখেছি প্রতিটি ঘর তৈরী করতে সর্বনি¤œ ২ লাখ ৭ হাজার টাকা করে খরচ হচ্ছে। তাই আমরা বাকী টাকা গুলো ভূমিহীন পরিবার গুলোকে দিতে বলেছি এক্ষেত্রে তারা যদি টাকা দিতে না পারে তাহলে তাদেরকে বলেছি যার যা আছে কাঠ বালী সিমেন্ট যে যা পারে ৩৬ হাজার টাকার জিনিষপত্র দিতে বলেছি।

থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতাউল গনি ওসমানী বলেন যে বরাদ্দ টা এসেছে তাতে থানচি উপজেলায় ঘর তৈরী করা সম্ভব নয়।

বিষযটি আমরা জেলা প্রশাসক মহোদয়কে জানিয়েছি। তবে ভুমিহীনদের কাছ থেকে শ্রম নেয়া যেতে পারে। তবে ভুমিহীনদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার বিষয়টি আমি জানি না। যদি টাকা নিয়ে থাকে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

থানচি উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লা মং মার্মা জানান প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভ’মিহীনদের বাড়ী তৈরী করে দিতে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা করে বরাদ্দ এসেছে সেটা আমি জানি তবে ভুমিহীনদের কাছ থেকে বাড়ী তৈরীর জন্য বাড়তি টাকা নেয়ার বিষয়ে আমি জানি না। প্রধানমন্ত্রীর বিনা মূল্যে উপহার ভ’মিহীনদের জন্য এক্ষেত্রে টাকা নেয়াটা আমি যুক্তিযুক্ত মনে করি না।

উল্লেখ্য বান্দরবানের থানচি উপজেলায় ভ’মিহীন ২৮৪টি পরিবারকে প্রধান মন্ত্রীর উপহার হিসেবে বাড়ী নির্মান করে দেয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে ৫০টি বাড়ী নিমান করা হবে এর মধ্যে ১৭ টি বাড়ীর নির্মান কাজ প্রায় সম্পন্ন এবং ১৭টির কাজ চলমান রয়েছে এবং বাকী গুলোর জায়গা নির্ধারনের কাজ চলছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •