শেফাইল উদ্দিন ,ঈদগাও :

কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে: কর্ণেল (অবঃ) ফোরকান আহমদ ঈদগাঁও ইউনিয়নের মাইজ পাড়া নিজ গ্রাম
ও পাশ্ববর্তী এলাকাকে আলোকিত করেছেন ।তিনি কক্সবাজারের পাশাপাশি নিজের জন্মস্থান ঈদগাঁও এলাকায় ও কাজ করে যাচ্ছেন।

জানা যায়, ঈদগাঁও ইউনিয়নের বৃহত্তর মাইজ পাড়ার সড়কটি ছিল খানাখন্দে ভরা । সম্প্রতি মেহেরঘোনা থেকে বন্কিমবাজার পর্যন্ত মাইজপাড়া সড়কটি কার্পেটিং করা হয়েছে। এলাকার বিদ্যুৎ ব্যবস্হা ছিল খুবই নাজুক। মটর,ফ্রিজ,টেলিভিশন চলত না, এমনকি বাল্ব ও পর্যন্ত পুরোপুরি জ্বলত না। তিনি সম্পূর্ণ বিদ্যুৎ লাইন পরিবর্তন করে পাওয়ারফুল বিদ্যুৎ লাইনের ব্যবস্হা করে দেন। এখন এলাকায় বিদ্যুৎ সমস্যা নেই বললেই চলে।

গ্রামের অলিগলি ছিল অন্ধকারে ভরা। প্রায় সময় চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধ সংঘটিত হতো। তিনি গ্রামে লাইটিং ব্যবস্হা করে দিয়ে পুরো গ্রামকে আলোকিত করে দিয়েছেন। ঈদগাঁও মাইজপাড়া এলাকা ছাড়া জালালাবাদ ইউনিয়নের লরাবাক, খামার পাড়া,ফরাজী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার সড়কেগূলো লাইটিং করে আলোকিত করেছেন । বন্ধ হয়ে গেছে ঘর চুরি,গরু চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধ।

তিনি এলাকায় মসজিদ নির্মাণ করেছেন এবং বিভিন্ন মসজিদ নির্মাণ কাজে সহযোগিতা করেছেন। এছাড়াও করোনাকালীন সময়ে বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের অসহায় ও ঘরবন্দী মানুষদের ত্রাণ বিতরণ ও বিভিন্ন ভাবে সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন । তিনি ঈদাগাওকে থানায় রুপান্তরিত করেছেন এবার উপজেলায় রুপান্তরিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য কক্সবাজার শহরে আবর্জনায় ভরা দুর্গন্ধযুক্ত তিনটি পুকুরকে স্বপ্নের পূকুর বানিয়ে বিনোদন স্পষ্ট পরিনত করেছেন । যা পর্যটন নগরী কক্সবাজারের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করেছে । এ বিনোদন স্পট গূলোতে বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত পর্যটকসহ স্থানীয়রা সময় কাটাচ্ছেন । ইতিমধ্যে তা লাখো মানুষের নজর কেড়েছেন। কক্সবাজার শহরে চার লাইন বিশিষ্ট্য সড়ক নির্মাণ করে যাচ্ছেন । নানান পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করে কক্সবাজারকে একটি বিশ্বমানের পর্যটন নগরী গড়তে কাজ করে যাচ্ছেন । এ করোনা কালীন সময়ে কক্সবাজারবাসীর পাশে ছিলেন । শহরের মুচিদের স্থায়ী দোকান করে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন ।

ঈদগাঁও মাইজ পাড়ার হেলাল উদ্দিন , জসিম, গিয়াস উদ্দিন   এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জানান, আমাদের দাবি কউক চেয়ারম্যান কাছে মাইজপাড়া খালটি খনন এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা ।  এ সব দাবির বিষয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান লে, কর্নেল (অব:) ফোনকান আহমদের সাথে কথা হলে তিনি জানান, তিনি জনগণের সাথে আছেন থাকবেন এবং অবশ্যই জনগণের দাবি পুরনে কাজ করে যাবেন ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •