৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রের বিজয় দিবস। বাঙ্গালী জাতি স্বত:স্ফুতভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে এ দিনে গণতন্ত্রের ভিত্তি মজবুত করেছিল। বাংলাদেশের ইতিহাসে ৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্র ও উন্নয়নের টার্ণিং পয়েন্ট হিসাবে বিবেচিত। বিএনপি-জামায়াতসহ সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে ভোট না দিয়ে জাতি এ দিন প্রত্যাখান করেছিলেন। এ অপশক্তি জনগণের রায় মেনে নিতে পারেনি। পরাজিত শক্তি ৩০ ডিসেম্বরকে কালো দিবস ঘোষণা করে প্রতি বছর দেশব্যাপী অপতৎপরতা চালিয়ে মানুষের জান-মাল ক্ষতি করার চেষ্টা করে। দেশের মানুষ তাদের অপতৎপরতা ও ষড়যন্ত্র কোন দিন বাস্তবায়ন হতে দেয়নি, ভবিষ্যতেও দিবে না। তাই দেশের মানুষের স্বার্থে ৩০ডিসেম্বর সকাল থেকে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন গুলো রাজপথে থাকবে এবং গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করবে। গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন সমুহ দুপুর ২ ঘটিকায় কক্সবাজার শহীদ দৌলত ময়দান থেকে এক বিশাল বিজয় র‌্যালী বের করবে।

জেলার আওতাধীন সকল উপজেলা ও সাংগঠনিক উপজেলাকে অনুরুপ কর্মসূচীর মাধ্যমে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করার জন্য নিদের্শ দেয়া হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জরুরী সভায় বক্তব্য রাখেন-জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা-শাহ আলম চৌধুরী রাজা, আজিজুর রহমান, রেজাউল করিম, সায়মুম সরওয়ার কমল এমপি, আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, মাহবুবুল হক মুকুল, এড. রনজিত দাশ, আবদুর রহমান বদি, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, এড. আব্বাস উদ্দিন চৌধুরী, ইউনুছ বাঙ্গালী, তাপস রক্ষিত, এম.এ. মনজুর, মেয়র মকসুদ মিয়া, আলহাজ্ব সোনা আলী, জি.এম. আবুল কাসেম, উজ্জ্বল কর, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল, ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান প্রমুখ।

সভায় উপস্থিত ছিলেন-জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এড. বদিউল আলম সিকদার, এড. ফরিদুল আলম, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, ড. নুরুল আবছার, এ.টি.এম. জিয়াউদ্দিন চৌধুরী, এড. সোলতানুল আলম, মিজানুর রহমান, মিজানুর রহমান ইকরা।

জরুরী সভা অদ্য ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ সকাল ১১ টা পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •